ইভিএমে ধীরগতি ও বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে নাঙ্গলকোট পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পৌরসভা নির্বাচন সোমবার সকাল ৮টা থেকে ৪টা পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে ১১টি ভোট কেন্দ্রে ৪৩ জন কাউন্সিলর ও ১১ জন মহিলা কাউন্সিলর (সংরক্ষিত) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ৩নং ওয়ার্ডের মডেল মহিলা কলেজ কেন্দ্রের পাশে সকাল বেলা চাপাতিসহ ৩ যুবককে আটক করে আইন শৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

ইভিএমে নাঙ্গলকোট পৌরসভায় প্রথম ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ায় বেশ কিছু কেন্দ্রে ভোট প্রদানে ধীরগতি লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়াও কয়েকটি কেন্দ্রে যান্ত্রিক ক্রটির কারণে সময়ে সময়ে ভোট বন্ধ থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পৌরসভা ৭নং ওয়ার্ডের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পাঞ্জাবি প্রতিকের প্রার্থী নূর গোলশাহকে আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর সদস্য কর্তৃক মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ করেন তিনি। নির্বাচন চলাকালে পুলিশ, র‌্যাব, ডিবি, বিজিবি ও গোয়েন্দা সংস্থার বিপুল সংখ্যক সদস্য নিয়োজিত ছিল। তাছাড়াও প্রত্যেক কেন্দ্রে ১ জন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন।
নির্বাচন চলাকালে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার ফারুক আহম্মেদ বিপিএমসহ উধ্বর্তন প্রশাসনিক কর্মকর্তাবৃন্দ বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।

 

উল্লেখ্য, ২১ এপ্রিল মেয়র পদে আব্দুল মালেক নৌকা প্রতীক নিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। করোনা পরিস্থিতির কারণে ওই সময় নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়।

 

আরও পড়ুন