কাশ্মীরের ‘আজাদি’ দাবিতে ঢাবিতে মিছিল

এবার থেকে সরাসরি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার শাসিত অঞ্চল হলো জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ। আর বিশেষ মর্যাদা রইল না ভারতের প্রদেশটির।

এদিকে কাশ্মীরের স্বাধীনতা বা ‘আজাদি’র দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) সংহতি মিছিল করেছেন শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (৫ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার কিছু পরে বাম নেতাদের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে মিছিল করেন অন্তত অর্ধশত শিক্ষার্থী।

ভারতে প্রশাসনিক ও অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে বিরোধপূর্ণ জম্মু-কাশ্মীর সাংবিধানিক অধিকার ভোগ করত।

সোমবার রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ বলে ভারতের সংবিধান থেকে সেই বিশেষ ৩৭০ ধারাটি বাতিল করার মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এর ফলে জম্মু ও কাশ্মির নিয়ন্ত্রিত হবে দিল্লি থেকে। সোমবার এর প্রতিবাদে ঢাবিতে বামপন্থীদের নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা মিছিলটি করেন।

সেখানে তারা ‘আজাদি’ বলে স্লোগান দেন। এ ছাড়া ‘কাশ্মীরের বীর জনতা লও লও লও সালাম’, ‘কাশ্মীরের বীর জনতা আমরা আছি তোমার সাথে’- ইত্যাদি স্লোগান দেন।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী ঢাবি শিক্ষার্থী নাসির উদ্দিন বলেন, কাশ্মীরিদের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেয়া অন্যায় হয়েছে। সেখানে সৈন্যসমাবেশ করা হয়েছে। সাধারণ মানুষের মতামত প্রকাশের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। তাই আমরা আজকে এটার প্রতিবাদে মিছিল করেছি।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই। এটা বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ দিনের সমস্যা।

তিনি আরও বলেন, যখনই কোন দেশের মানুষের উপর হামলা হয়, জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে জাতিসংঘ চুপ কেন! জবাব চাই।

মিছিলটি টিএসসি থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে শেষ হয়।

You might also like