গণপরিবহন চালু করা উচিত : ডা. জাফরুল্লাহ

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন পরিস্থিতিতে সীমিতভাবে গণপরিবহন চালু করা যেতে পারে। পথে পথে গাড়ি-ঘোড়া চলতে শুরু করেছে। কিন্তু সাধারণ মানুষের বাহন গণপরিবহন চালু হয়নি। সে কারণে আমার একান্ত সুপারিশ প্রতি দুই ঘণ্টা পর পর গণপরিবহন চালু করা প্রয়োজন। অপরপক্ষে প্রতি সপ্তাহে দুই দিন প্রাইভেট কার চালানো বন্ধ রাখতে হবে।

আজ শুক্রবার সকালে আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের ডাকা ‘অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি একথা বলেন।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, শহরে বেশির ভাগ মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষজন ভাড়া বাড়িতে থাকেন। করোনা পরিস্থতির কারণে সব কিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তাদের আয়-উপার্জন বন্ধ হয়ে গেছে। তাই তারা বাড়িভাড়া পরিশোধ করতে পারছে না, বিভিন্ন সেবামূলক বিল পরিশোধ করতে পারছে না। এদেরও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ৫০% প্রণোদনা দিন।

সারা দেশে ২ কোটি প্রান্তিক মানুষের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানো ও কৃষকদের কাছ থেকে বোরো ধান কেনার সময় মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের দৌরাত্মে্যর বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ারও আহবান জানান তিনি।

সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি বাহারানে সুলতান বাহার, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনসহ অনেকে।

 

আরও পড়ুন