টাইগারদের কোচ হতে মাহেলা জয়াবর্ধনের দুই কঠিন শর্ত

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচ স্টিভ রোডসের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে সব কিছুর অবসান ঘটে গেছে। রোডস নিজের শেষ বক্তব্য গত ১১ জুলাই জানিয়ে দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)।

যদিও প্রধান কোচ হিসেবে স্টিভ রোডসের দায়িত্ব শেষ হয়েছে চুক্তির মাঝপথেই। তার কাজের কিছু বিষয়ে বোর্ড সন্তুষ্ট না থাকায় চুক্তি শেষ হওয়ার বছরখানেক আগেই তাকে বিদায় বলেছে বিসিবি।

চুক্তির মেয়াদ এক বছর বাকি থাকা সত্ত্বেও রোডসকে কেন চাকরিচ্যুত করা হল এ নিয়ে অনেক গুঞ্জনই ছিল ক্রিকেট পাড়ায়। এ বিষয়ে মূল কারণও জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। যা সবারই জানা।

প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের পাশাপাশি চাকরি হারান পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও স্পিন কোচ সুনিল জোশি। এরই মধ্যে আগামী বছর টি-২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে সাকিব-মুশফিক-তামিমদের বোলিং কোচ হিসিবে ড্যানিয়েল ভেট্টরি এবং চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

বোলিং কোচ নিশ্চিত হলেও হেড কোচ হিসেবে এখনও কারো সঙ্গে কথা পাকাপোক্ত করতে পারেনি বিসিবি।

সূতে জানা গেছে, ইতোমধ্যেই টাইগারদের নতুন কোচ হতে আবেদন জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি মাহেলা জয়াবর্ধনে।

ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ব্যাট হাতে একের পর এক তান্ডব দেখিয়েছেন জয়াবর্ধনে। কোচিং ক্যারিয়ারেও বেশ সফল তিনি।

এ ব্যাপারে বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন বলেন, ‘ভারতের কোচ হওয়ার দৌড়ে আছেন অনেকে। ভারত কোচ নিয়োগ দেওয়ার পর আমরা জোরেশোরে নামব। অনেকের সঙ্গেই কথাবার্তা হয়ে আছে। আমরা পূর্ণ সময়ের জন্য কোচ চাই, যার আন্তর্জাতিক পরিচিতিও রয়েছে।’ এই দৌড়ে মাহেলা জয়াবর্ধনেও আছেন।

টাইগারদের কোচ হতে মাসে ৫৫ হাজার ডলার চেয়েছেন মাহেলা। কিন্তু শর্ত দিয়েছিলেন, ফ্র্যাঞ্চাইজি লীগের জন্য ছাড় চান তিনি। এখন দেখার বিষয় এই যে তাকে বিসিবিতে আনা হয় কিনা!

যদি মাহেলাকে টাইগারদের কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়, তাহলে বাংলাদেশের ক্রিকে ইতিহাসে সর্বোচ্চ বেতনের কোচ হিসেবে নিয়োগ পাবেন তিনি। কারণ এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বিদেশি কোচদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেতন নিয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। প্রতি মাসে তার বেতন ছিল ২৬ হাজার ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ২১ লাখ ৮৮ হাজার টাকা।

সে হিসেবে মাহেলার এই শর্ত মেনে নিলে মাস প্রতি প্রায় বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪৫ লাখ টাকা বেতনে নিয়োগ দিতে হবে তাকে।

আরও পড়ুন