দেশ-বিদেশে জামায়াত নেতা-কর্মীদের মৃত্যুতে বাংলাদেশ জামায়াত আমীরের শোক

সাম্প্রতিক সময়ে দেশ ও বিদেশে জামায়াতে ইসলামীর একাধিক নেতা-কর্মীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান। শ্রীলঙ্কা জামায়াতে ইসলামীর আমীর সহ দেশের বিভিন্ন এলাকার বেশ কজন নেতা-কর্মী ও তাদের আত্মীয় স্বজনের মৃত্যু হয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে।

শ্রীলংকা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর সাইয়েদ মুহাম্মাদ হাসারাতের ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান।

মঙ্গলাবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবাণীতে তিনি বলেন, সাইয়েদ মুহাম্মাদ হাসারাতের ইন্তেকালে আমি গভীরভাবে শোকাহত। তিনি ছিলেন অমায়িক গুণে গুণান্বিত একজন সহজ-সরল মনের মানুষ। তিনি তার নিজ দেশ শ্রীলংকায় ইসলামী আন্দোলনের প্রচার-প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গিয়েছেন। তিনি ইসলামের বিভিন্ন বিষয়ে গভীর পাণ্ডিত্য অর্জন করেন। তার অক্লান্ত পরিশ্রমে সাধারণ একটি বই বিক্রির স্টেশনারী দোকান শ্রীলংকার একটি মানসম্পন্ন বই-এর কোম্পানীতে পরিণত হয়।

এই বুক হাউসের মাধ্যমে তিনি শ্রীলংকায় বহু নামকরা ইসলামিক স্কলার তৈরি করেন এবং যুবকদের মাঝে ইসলামী বই ব্যাপকভাবে প্রচার করতে সমর্থ হন। তারই ফলশ্রুতিতে এবং তার বিচক্ষণ দাওয়াতী কার্যক্রমে প্রায় নেতৃত্ব শূন্যে থাকা শ্রীলংকা জামায়াতে ইসলামী একটি সুসংগঠিত সংগঠনে পরিণত হয়। আল্লাহ তাআলা তার সকল দ্বীনি খেদমত কবুল করুন ও তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে উচ্চ মাকাম দান করুন।

আমি সাইয়েদ মুহাম্মাদ হাসারাতের রূহের মাগফেরাত কামনা করছি এবং তার পরিবার-পরিজন ও আত্মীয়-স্বজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য জনাব মোবারক হোসাইনের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা জনাব মো. আমির হোসেন ৭৩ বছর বয়সে ৪ মে দিবাগত রাত সোয়া ৩টায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না-ইলাইহি রাজিঊন। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় চাঁদপুর জেলার হাজিগঞ্জ উপজেলার মাতুইন নামক তার নিজ গ্রামের বাড়িতে সালাতে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। সালাতে জানাযায় ইমামতি করেন তার ভাই জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য জনাব মোবারক হোসাইন।

জনাব মো. আমির হোসেনের ইন্তেকালে এক শোকবাণীতে ডা. শফিকুর রহমান মোঃ আমির হোসেনের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করার জন্য মহান আল্লাহর নিকট দোয়া করেন।

শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ফরিদপুর অঞ্চলের টীম সদস্য জনাব শামসুল ইসলাম আল বরাটির মাতা সালেহা বেগম ৯৫ বছর বয়সে ৫ মে বেলা আড়াইটায় ফরিদপুর হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না-ইলাইহি রাজিঊন। তিনি ৬ পুত্র, ৭ কন্যা এবং নাত-নাতনীসহ বহু-আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন।

সালেহা বেগমের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে ডা. শফিকুর রহমান সালেহা বেগমের রূহের মাগফিরাত কামনা করে বলেন, মহান আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়াআলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী বি-বাড়িয়া জেলা শাখা জামায়াতে ইসলামীর মহিলা বিভাগের প্রবীণ সদস্য (রুকন) নাসিমা পারভীন ৫৯ বছর বয়সে ৪ মে রাত ৮টায় বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না-ইলাইহি রাজিঊন। তিনি ২ পুত্র ও ২ কন্যাসহ বহু-আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। ৫ মে সকাল ১০টায় নাসিরনগর উপজেলার কাঁঠালকান্দী নামক তার নিজ গ্রামের বাড়িতে সালাতে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

নাসিমা পারভীনের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে ডা. শফিকুর রহমান বলেন, নাসিমা পারভীন (রাহিমাহুল্লাহ)-কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়াআলা ক্ষমা ও রহম করুন এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাহখাতাগুলোকে ক্ষমা করে দিয়ে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন।

শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সদস্য (রুকন) পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের অমরখানা গ্রাম নিবাসী জনাব মোঃ নূর ইসলাম এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ৪৮ বছর বয়সে ৩ মে সন্ধ্যা ৬টায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকার করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না-ইলাইহি রাজিঊন। তিনি বাবা-মা, স্ত্রী ও ৪ কন্যাসহ বহু-আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন।

জনাব মোঃ নূর ইসলামের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে ডা. শফিকুর রহমান বলেন, জনাব মো. নূর ইসলাম (রাহিমাহুল্লাহ)-কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়াআলা রহম করুন এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাহখাতাগুলোকে ক্ষমা করে দিয়ে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন।

শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন। -বিজ্ঞপ্তি

আরও পড়ুন