নোয়াখালীতে তিন পুলিশ কর্মকর্তা আহতের ঘটনায় থানায় মামলা , গ্রেপ্তার-২

নোয়াখালী প্রতিনিধি :

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে ২ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার করায় তার সহযোগীদের হামলায় তিন পুলিশ কর্মকর্তা আহতের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্প্রতিবার দুপুরে মাদককারবারীদের হামলায় আহত ডিবির এসআই সাঈদ মিয়া বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন,ওই উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের আবদুর রশিদের ছেলে সায়েম (২২) ও একই এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে আমির হোসেন লিটন (৩৭)। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি পাইগান, ৩রাউন্ড গুলি,১০০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এর আগে,বুধবার রাত ৮টার দিকে উত্তর-পশ্চিম একলাশপুর এলাকার কাথাওয়ালার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ কর্মকর্তার হলেন, এসআই জাকির হোসেন (৪০), এসআই সাঈদ মিয়া (৪১) ও এএসআই হেলাল উদ্দিন (৩৫)।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির একটি দল একলাশপুর এলাকার কাথাওয়ালার বাড়ীতে অভিযান চালায়। এসময় ওই বাড়ী থেকে মাদক কারবারী লিটন ও সায়েমকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাকে নিয়ে ফেরার পথে পুলিশের উপর অর্তকিত হামলা চালায় তার ৮/১০জন সহযোগি। এসময় তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশের তিন কর্মকর্তা আহত হন। আহতদের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত লেগেছে। তাদের উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা শাখার (ওসি) ডিবি কামরুজ্জামান শিকদার জানান, বুধবার রাতের ঘটনায় থানায় ৩টি মামলা হয়েছে। মামলা গুলো হলো, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে ১টি, অস্ত্র আইনে ১টি ও পুলিশের ৩ কর্মকর্তা আহতের ঘটনায় আরো ১টি মামলা হয়েছে। বৃহস্প্রতিবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত মাদককারবারী ২জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, আহত অবস্থায় রাত সোয়া ৯টার দিকে ডিবি পুলিশের ৩ কর্মকর্তাকে জরুরি বিভাগে আনা হয়। এদের মধ্যে এসআই সাইদের মাথায় তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। বাকিদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. আলমগীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মাদক কারবারি লিটনকে মাদকদ্রব্য ও অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে আনার সময় তার সহযোগীরা হামলা চালিয়ে তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে জখম করেছে। হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। ডিবি পুলিশের ওপর হামলাকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না।

আরও পড়ুন