ফের বাড়ল হজের নিবন্ধনের সময়

হজে গমনেচ্ছুদের নিবন্ধনের সময় ফের বাড়ল। নিবন্ধনের সময় আগামী ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে মঙ্গলবার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়। আগের ঘোষণা অনুযায়ী হজযাত্রী নিবন্ধনের শেষ সময় ছিল আজ (বুধবার, ৮ এপ্রিল)।

জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০২০ সালের সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে ইচ্ছুক, নিবন্ধনের জন্য পাসপোর্ট জমা দেওয়া অনেকে সরকারি ছুটির কারণে ব্যাংক থেকে নিবন্ধন ভাউচার গ্রহণ করতে পারেননি। এর মধ্যে নিবন্ধন ভাউচার গ্রহণকারী অনেকে টাকা জমা দিতে পারেননি। এ জন্য হজযাত্রী নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় এই পর্যন্ত সব প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তিসহ হজে যেতে ইচ্ছুক যেকোনো ব্যক্তি নতুন ভাবে প্রাক-নিবন্ধন ও নিবন্ধন করতে পারবেন। অন্যদিকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনার প্রাক-নিবন্ধনের সর্বশেষ ক্রমিক ৬ লাখ ৭২ হাজার ১৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তির মধ্যে ‘আগে আসলে আগে নিবন্ধন করা হবে’ ভিত্তিতে নিবন্ধন করতে পারবেন। পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের সুবিধার্থে ১৫ এপ্রিলের মধ্যে সংশ্লিষ্ট নিবন্ধন কেন্দ্রে পাসপোর্ট দাখিল করতে হবে।

এবার হজে যেতে আগ্রহীদের জন্য তিন ধরনের প্যাকেজ রেখেছে সরকার। এর মধ্যে প্রথম প্যাকেজে চার লাখ ২৫ হাজার টাকা, দ্বিতীয় প্যাকেজে তিন লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় প্যাকেজে তিন লাখ ১৫ হাজার টাকা খরচ হবে।

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ করতে আগ্রাহীদের নিবন্ধন করতে আপাতত বিমান ভাড়া ও সার্ভিস চার্জ বাবদ ১ লাখ ৫১ হাজার ৯৯০ টাকা জমা দিতে হবে। এখন কোনো অবস্থাতেই এর বেশি টাকা জমা না দিতে সতর্ক করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ জুলাই অর্থাৎ ৯ জিলহজ হজ হবে এবার। সে অনুযায়ী ২৩ জুন হজ ফ্লাইট শুরু করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করে আসছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ।

সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী, চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার জন হজে যাওয়ার সুযোগ পাবেন। তবে বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে সবকিছুই এখন নির্ভর করবে সার্বিক পরিস্থিতির ওপর।

উল্লেখ্য, গত ১ মার্চ থেকে হজযাত্রী নিবন্ধন শুরু হয়। প্রাথমিকভাবে হজ নিবন্ধনের সময়সীমা ১৫ মার্চ পর্যন্ত বেঁধে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে গত ১২ মার্চ তা ২৫ মার্চ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। পরে ২৫ মার্চ ৮ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হয়। এবার তা ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হলো।

আরও পড়ুন