মিয়ানমারের রাসায়নিক অস্ত্র রয়েছে

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের নির্যাতনকারী সরকারের বিরুদ্ধে এবার বড় ধরনের অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণে আন্তর্জাতিক কনভেনশন লঙ্ঘন করছে মিয়ানমার।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, ১৯৮০ সাল থেকে মিয়ানমারের কাছে বিপুল পরিমাণ রাসায়নিক অস্ত্রের মজুত ছিল, সেগুলো ধ্বংস করা হয়নি। ওই অস্ত্রগুলো এখনো রয়েছে। রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থার (ওপিসিডাব্লিউ) বার্ষিক আলোচনা সভায় সোমবার এ তথ্য জানান মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা।

তিনি আরো জানান, মিয়ানমারের কাছে ভারী গ্যাস উৎপাদনের একটি ক্ষেত্রে এখনো রাসায়নিক অস্ত্রের মজুত রয়েছে।

এর আগেও মিয়ানমারের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকবার রাসায়নিক অস্ত্র উৎপাদন, মজুত ও ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে। তবে ট্রাম্পের দেশের অভিযোগ এবারই প্রথম। যদিও মিয়ানমার ২০১৫ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে রাসায়নিক অস্ত্র কনভেনশনে (সিডাব্লিউসি) স্বাক্ষর করে। ওই কনভেনশনের শর্ত অনুসারে, স্বাক্ষরকারী কোনো দেশ রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার, উৎপাদন কিংবা মজুত করতে পারবে না।

এ ধরনের শর্তে স্বাক্ষর করা সত্ত্বেও রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ রাখা বড় ধরনের অন্যায় বলে অভিযোগ ওই মার্কিন কর্মকর্তার।

আরও পড়ুন