রাস্তায় ময়লা ফেলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান ঢাবি উপাচার্যের!

প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত নামে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিষ্কার রাস্তায় ময়লা ফেলে তা পরিষ্কারের মাধ্যমে ‘ক্লিন ক্যাম্পাস উইক’ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। সকালে পরিছন্নতা কর্মীরা টিএসসির রাস্তা সব পরিষ্কার করে যায়। কিন্তু ঠিক কয়েক ঘন্টা পর ওই রাস্তায় ময়লা আবর্জনা ফেলে তা ফটো শুট করার পরেই সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

সোমবার (৫ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) এ ঘটনা ঘটে। এরপরই বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা বলেন, সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ‘ক্লিন ক্যাম্পাস উইক’ উদ্ধোধনের কিছুক্ষণ আগে পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা টিএসসি এলাকায় ময়লা ফেলে যায়। সকালেও এ জায়গাটি পরিষ্কার থাকতে দেখা গেছে। প্রোগ্রামের আগে বিভিন্ন পলিথিন, প্লাস্টিকের চায়ের কাপ, ডাবের খোসাসহ বিভিন্ন জিনিস পরে থাকতে দেখা যায়। এসব আবর্জনা পাশেই পরিচ্ছন্নতা কর্মীর ভ্যানে ছিল।

তারা বলেন, এখানে যে বর্জ্যগুলো পড়ে ছিল তা এখানকার বর্জ্য ছিল না। অন্য কোথাও থেকে এখানে এসব ময়লা ফেলা হয়েছে।
এক পরিচ্ছন্নতা কর্মী বলেন, স্যারদের ময়লা তোলার সুবিধার্থে এসব ময়লা এখানে আনা হয়েছে। স্যার চলে গেলে এগুলো আমরাই পরিষ্কার করব।

কেন পরিষ্কার জায়গায় ময়লা ফেলা হলো, এ বিষয়ে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, যারা ময়লা ফেলেছে তাদের জিজ্ঞেস করা হোক। আমাদের কাজ হলো যেখানে ময়লা আছে তা পরিষ্কার করব।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, ‘আমরা সবাইকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা থাকার জন্য আহ্বান করব। কেউ যেন ময়লা না ফেলে সে বিষয়ে অনুরোধ করব।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো কামাল উদ্দীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন, সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন ও সদস্য তিলোত্তমা শিকদারসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

You might also like