শান্তির বাণী ছড়িয়ে দিতে ইংল্যান্ড থেকে হেটে হজের উদ্দেশে যুবক

ব্রিটিশ মুসলিম নাগরিক ফরিদ ফায়েদি। শান্তির বাণী ছড়িয়ে দিতে এবং মুসলিম যুবকদের ভেতর সচেতনতা তৈরির জন্য হেঁটে হজ করার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘একজন মুসলিম হিসেবে আমি বিশ্বাস করি বিশ্বের প্রত্যেক মুসলমান ইসলামের একেক জন প্রতিনিধি। ইসলাম ও মুসলমানকে সুন্দরভাবে পৃথিবীর সামনে উপস্থাপন করা সবার দায়িত্ব। ইসলাম মানুষকে শান্তির পথে আহ্বান জানায়। ইসলাম শব্দের ধাতুতেই শান্তির অর্থ রয়েছে।’

ফরিদ ফায়েদি ২০১৯ সালের ৩ নভেম্বর পদযাত্রা শুরু করেন এবং আগামী জুলাই মাসে মক্কায় পৌঁছানোর ইচ্ছা তাঁর। সেখানে তিনি পবিত্র হজ পালন করবেন। প্রথমে তিনি সাইকেলে মক্কার উদ্দেশে যাত্রা করতে চাইলেও পরবর্তীতে তাঁর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন। ফায়েদি বলেন, ‘৩ নভেম্বর আমার যাত্রা শুরু হয়।

আমি আগেও অনেক ভ্রমণ করলেও এই জাতীয় ভ্রমণের কোনো অভিজ্ঞতা আমার নেই। আমি খুবই আবেগাপ্লুত ছিলাম।’ ফরিদ ফায়েদি ইতিমধ্যে ৪০০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে বর্তমানে ইস্তাম্বুল রয়েছেন এবং মক্কায় পৌঁছাতে আরও ২৭ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হবে তাঁকে।

ফরিদি তাঁর দীর্ঘ পদযাত্রার মাধ্যমে পৃথিবীর ক্যান্সার রোগীদের পক্ষে গণসচেতনতা তৈরি করতে চান। তিনি জানান, ‘আমি কিডনি ক্যান্সারে আক্রান্ত একজন মানুষ। আমি একটি কিডনি নিয়ে বেঁচে আছি। এরপরও আমি প্রতিদিন ৬০ কিলোমিটার হাঁটি। আল্লাহর অনুগ্রহ ছাড়া আমি এত দূর পৌঁছাতে পারতাম না এবং তাঁর অনুগ্রহ ছাড়া মক্কাতেও পৌঁছাতে পারব না।

পৃথিবীর পবিত্রতম স্থানে আমার কষ্টকর যাত্রা সার্থক হবে যদি আমি মানুষের কাছে এই বার্তা পৌঁছাতে পারি যে, ইসলাম শান্তির ধর্ম, মুসলিমরা শান্তিপ্রিয় এবং মুসলিম যুবকদের ইসলামের পক্ষে শান্তিপূর্ণভাবে কাজ করার অনুপ্রেরণা জোগাতে পারি

 

আরও পড়ুন