শেবাচিমের পিসিআর ল্যাব সচল হয়নি ৩ দিনেও

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ওয়ার্ডে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলো ২১ জন রোগী। এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে কারিগরি ত্রুটির কারণে গত ৩ দিন ধরে বন্ধ রয়েছে নমুনা পরীক্ষা। এ কারণে গত সোমবার রাতেও পিসিআর ল্যাবের কোনো রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি।

হাসপাতালের পরিচালক কার্যালয় থেকে জানা যায়, গত সোমবার করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলো ২৬ জন রোগী। বিগত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে করোনা ওয়ার্ড ত্যাগ করেছেন ৭ জন রোগী। একই সময়ে নানা উপসর্গ নিয়ে করোনা ওয়ার্ডে ৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলো ২১ জন রোগী।

এর আগে গত সোমবার করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১জন রোগীর মৃত্যু হয়। রবিবার করোনা ওয়ার্ড ছিলো মৃত্যু শূন্য। শনিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এর আগের ৭২ ঘণ্টায় (৩ দিন) চিকিৎসাধীন কোন রোগী মারা যায়নি করোনা ওয়ার্ডে।

 

গত বছরের ১৭ মার্চ শেবাচিমে করোনা ওয়ার্ড চালুর পর এ পর্যন্ত ৭ হাজার ৩শ’ ২৬ জন রোগী সেখানে ভর্তি হন। যার মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ হাজার ৪শ’ ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবের কারিগরি ত্রুটির কারণে নমুনা পরীক্ষার কোনো রিপোর্ট গত ৩ দিনে প্রকাশিত হয়নি। এ কারণে সব শেষ সোমবার রাতেও কোন রিপোর্ট প্রকাশিত হয়নি বলে জানিয়েছেন পারিচালক কার্যালয়ের করোনা তথ্য সংরক্ষক জাকারিয়া খান স্বপন।

এর আগে গত শুক্রবার রাতের সব শেষ রিপোর্টে ১.২২ ভাগ, বৃহস্পতিবার ১.০০ ভাগ, বুধবার ০.৯০ ভাগ, মঙ্গলবার ০.৮৮ ভাগ, সোমবার ৬.৬২ ভাগ এবং গত রবিবার ৪.৭৮ ভাগ করোনা শনাক্ত হয় পিসিআর ল্যাবে।

গত বছরের ৮ এপ্রিল মেডিকেল কলেজে পিসিআর ল্যাব চালুর পর গত ৫ জুলাই সর্বাধিক ৭৩.৯৪ ভাগ করোনা শনাক্ত হয়।

 

আরও পড়ুন