সফিউল বারী বাবুর মাগফিরাত কামনায় স্বেচ্ছাসেবক দলের দোয়া অনুষ্ঠিত

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রয়াত সভাপতি সফিউল বারী বাবুর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) বাদ জুম্মা লক্ষীপুর জেলার রামগতিতে সংগঠনের প্রয়াত সভাপতি সফিউল বারি বাবুর সমাধীস্থলে তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া জুয়েল এর নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় ও বিভিন্ন জেলা পর্যায়ের অসংখ্য নেতা-কর্মী সফিউল বারি বাবুর সমাধীস্থলে ফাতিহা পাঠ করেন এবং তার রুহের মাগফিরাত কামনা করে মহান আল্লাহতায়ালার কাছে দোয়া করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্রনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভুঁইয়া, অ্যাডভোকেট সৈয়দ শামছুল আলম ও বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুনী এ্যানি।

স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান সফিউল বারী বাবুর স্মৃতিচারণ করে বলেন, সফিউল বারী বাবু শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শের একজন খাঁটি সৈনিক ছিলেন। সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তাকে যখন যে দায়িত্ব দিয়েছেন, তিনি তা সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন।’

সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া জুয়েল বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সেরা সংগঠক ছিলেন সফিউল বারী বাবু। সংগঠনকে তৃণমূল থেকে গড়ে তুলতে তার অবদান অপরিসীম। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনসহ সাধারণ মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার মৃত্যুতে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।’
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি গোলাম সরোয়ার, আসাদুজ্জামান নেসার, আনু মোহাম্মদ শামীম আজাদ, শাহাবুদ্দিন মুন্না, মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, আসিফ কবির চৌধুরী শ্বত, চৌধুরী ওয়াহিদুর রহমান চয়ন, জামাল হোসোইন তালুকদার, জামির হোসেন, এমদাদুল হক এমদাদ, একেএম আবুল কালাম আজাদ, আরিফ হোসেন হাওলাদার, নুসরাত এলাহী রিজভী, তৈয়বুর রহমান, ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, শাহবুদ্দিন ফারুক, স্বেচ্ছাসেবক দলের উপদেষ্টা মন্ডলীর অন্যতম সদস্য নজরুল ইসলাম জুয়েল, মনির আলম চৌধুরী ও মাহমুদুল হাসান।

এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাদরেজ জামান, কাদের হালিমী, আরিফুর রহমান আরিফ, আশ্রাফ উদ্দিন রুবেল, আব্দুল কুদ্দুস, তারিক আহমেদ তারেক, আহসান হাবিব প্রান্ত, সিরাজুল সালেকিন লিমন, সাইদ উদ্দিন সুমন, ডি জেড এম হাসান বিন সোহাগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিনের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক ফজলুল কবির জুয়েল, মহিউদ্দিন লোবান, মাহমুদুল বারী, ফরহাদ উদ্দিন, কাজী ইফতেখারুজ্জামান শিমুল, রেজাউর রহমান বাবু, মোস্তাফিজুর রহমান বাচ্চু, সরদার মোহাম্মদ নুরুজ্জামান, সাইদুর রহমান মামুন, সৈয়দ শহিদুল ইসলাম, সরোয়ার হোসেন ভুইয়া রুবেল, দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, প্রকাশনা সম্পাদক হুমায়ুন কবির, ঢাকা মহানগর উত্তরের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদুর, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আজিজুর রহমান মোসাব্বির, কেন্দ্রীয় সহ-সংগঠনিক সম্পাদক বাহারুল ইসলাম, আকরামুজ্জামান টোকন, বেলাল হোসেন, বারেক ইকবাল, সালেহ আহম্মেদ কাঞ্চান, জি এম গালিব ইমতিয়াজ নাহিদ, রুহুল আমিন মুন্সি, সহ-প্রচার সম্পাদক গোলাম মোর্শেদ রাসেল, সহ-দপ্তর সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, সহ-প্রকাশনা সম্পাদক গাজী সুলতান জুয়েল, মনিরুজ্জামান মনির, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড.দোলোয়ার জাহান রুমী, লক্ষীপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মহসিন কবির স্বপন ও সাধারণ সম্পাদক হারুনর রশিদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

 

আরও পড়ুন