সিরাজগঞ্জে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

সিরাজগঞ্জ থেকেঃ

সিরাজগঞ্জে বুদ্ধি ও বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে (১২) বিস্কুট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে শিক্ষক মো. জাহাঙ্গীর আলম (৪৬) ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় কিশোরীর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলমকে আসামি করে রায়গঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্ত কামারখন্দ উপজেলার চরভদ্রঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ উপজেলার পাঙ্গাসী ইউনিয়নের কালিঞ্জা গ্রামে। ওই শিক্ষক কালিঞ্জা গ্রামের সোলেমান মাষ্টারের ছেলে।   স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ওই শিক্ষক সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) অনুমান দুপুর দের টার দিকে বুদ্ধি ও বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে (১২) বিস্কুট খাওয়ানোর কথা বলে কৌশলে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। এর পর তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

কিশোরী মেয়েটির বাড়ী ওই শিক্ষকের পাশে হওয়ায় মেয়েটি দৌড়ে বাড়ীতে এসে ইশারা ইঙ্গিতে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে তার ভাবি শারমিন খাতুনকে বোঝানোর চেষ্টা এবং প্রচন্ড ব্যথা অনুভবের কথা বলে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে নিষ্পত্তি করতে মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে গ্রামে বৈঠক হলে প্রভাবশালী শিক্ষকের প্রভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা ব্যর্থ হয়।

এ ঘটনায় বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ধর্ষিতার বাবা মো. ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে রায়গঞ্জ থানায় ধর্ষক জাহাঙ্গীর আলম (৪৬) কে একমাত্র আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ১৩/১৯ ইং। এ ব্যাপারে কামারখন্দ উপজেলা প্রাথমিক সহকারি শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, এমন অভিযোগের কথা জানা নেই। তবে তিনি অসুস্থ্যজনিত কারণে ৩ দিনের ছুটি নিয়েছে বলে জেনেছি।

এ বিষয়ে রায়গঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ পঞ্চনন্দ সরকার বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে। আশা করি অচিরেই তাকে গ্রেফতার করতে পারবো।

আরও পড়ুন