সীতাকুণ্ডে আগুনে পুড়ল ৭ পরিবারের ১৩ বসতঘর

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের মুরাদপুর ইউনিয়নের বসরতনগর গ্রামে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৭টি পরিবারের ১৩টি বসতঘর ও নগদ টাকাসহ যাবতীয় সরঞ্জাম পুড়ে গেছে। এতে আনুমানিক ৭০-৮০ লাখ টাকার সম্পদহানি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টার সময় মুরাদপুর ইউনিয়নের বসরতনগর গ্রামের নাজির আলী সারাং বাড়ির মো. বাহাউদ্দিনের ঘরে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হলে তা মুহূর্তেই আশপাশের বিভিন্ন ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় এলাকাবাসী ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলেও ফায়ার সার্ভিস আসার আগেই আগুন ৭টি পরিবারের ১৩টি ঘরে ছড়িয়ে পড়ে যাবতীয় সরঞ্জাম পুড়ে যায়। পরে সীতাকুণ্ড ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে দীর্ঘ ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণ করে।

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত একজন বলেন, রাত আনুমানিক সাড়ে ৩টার দিকে আমাদের ঘরের সামনে থাকা একটি বাঁশের খুঁটি থেকে আগুন ঘরে লেগে যায়। এরপর আমাদের ঘরের আড়াই ভরি স্বর্ণালংকার আসবাবপত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পুড়ে আনুমানিক ৫ লাখ টাকার সম্পদহানি হয়। ক্ষতিগ্রস্ত অপর এক বাসিন্দা জানান, তাদের ঘর পুড়ে পরিবারের সব মিলিয়ে দেড় লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। প্রবাসী আবুল বসরের স্ত্রী খালেদা আক্তার বলেন, ৭ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ দেড় লাখ টাকা, আসবাবপত্রসহ সাড়ে ৭ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জানান, ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডে পরিবারগুলো নিঃস্ব হয়ে গেছে। বেহাল সড়কে ফায়ার সার্ভিস আসা-যাওয়াও কষ্টকর। সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার তাশারফ হোসেন বলেন, আমরা অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণ করেছি। তবে তিনি এখনো অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির নিরূপণ করতে পারেননি বলে জানান।

আরও পড়ুন