স্কুলের বেতন দিতে পারতেন না আমির খানের বাবা?

‘লাল সিং চাড্ডা’ মুক্তি পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন আমির খান। কারিনা কাপুরের সঙ্গে জুটি বেঁধে তিনি নিয়ে আসছেন হলিউড ছবি ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর হিন্দি রিমেক।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বলিউডের ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট’ জানালেন কীভাবে স্কুলে থাকার সময় বেতন দিতে দেরি হত তার ও তার ভাইবোনদের। আর তা নিয়ে কতটা ভয়ে ভয়ে থাকতেন তারা।

বলিউডের প্রযোজক তাহির হুসেন আর তার স্ত্রী জিনাত হুসেনের ছেলে আমির খান। চার ভাইবোন ফয়সাল, ফারহাত আর নিখাতের মধ্যে তিনিই বড়। ১৯৭৩ সালে ‘ইয়াদো কা বারাত’ ছবি দিয়ে ক্যারিয়ারের শুরু। এরপর বড় হয়ে ১৯৮৮ সালে ‘কেয়ামাত সে কেমায়ামাত তাক’-এ কাজ করেন জুহি চাওলার বিপরীতে। তাহির আমির খানের একটি ছবিই প্রযোজনা করেছিলেন, আর তা হল ১৯৯০ সালে ‘তুম মেরে হো’।

 

‘হিউম্যান্স বোম্বে’-কে সাক্ষাৎকারে আমির সেই আটটা বছরের কথা বলেন যখন তাদের পরিবারের খুব টানাটানি চলছিল। সেই সময় স্কুলের বেতন দিতেও দেরি হয়ে যেত। আমির জানান, তাদের স্কুলের ফি ছিল কিছুটা এরকম ক্লাস সিক্সে ৬ রুপি, ক্লাস সেভেনে সাত রুপি, ক্লাস ৮-এ আট রুপি। তা সত্ত্বেও আমির ও তার ভাইবোনরা ‘সময় মতো বেতন দিতে পারতেন না’। এক-দু’বার সাবধান করে দেওয়ার পর, প্রিন্সিপাল তাদের নাম ঘোষণা করে দিতেন অ্যাসেম্বলিতে, গোটা স্কুলের সামনে। এই কথা বলতে গিয়েও কেঁদে ফেলেন আমির। সূত্র:হিন্দুস্তান টাইমস, ইন্ডিয়া টুডে

আরও পড়ুন