হাসপাতালে নবজাতককে ফেলে পালিয়ে গেলেন মা

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দোতালার বারান্দায় নবজাতক এক কন্যাশিশুকে ফেলে পালিয়েছেন মা। গত বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে খাদিজা নামের হাসপাতালের এক কর্মচারী নবজাতকের কান্নার শব্দ শুনে বারান্দায় যান। সেখানে নবজাতকটিকে একটি বিছানার নীচে কাঁথায় মোড়ানো অবস্থায় পান তিনি। এ সময় কোনো অভিভাবক না পেয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সদের জানান খাদিজা।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন একজন রোগী জানান, সন্ধ্যার দিকে বোরখা পরিহিত এক নারী নিজেকে মা পরিচয় দিয়ে ওই নবজাতককে নিয়ে হাসপাতালে আসেন। এ সময় তিনি নবজাতকটি অসুস্থ্য জানিয়ে তাকে কোলে নিয়ে হাসপাতালের দোতালায় ঘোরাঘুরি করতে থাকেন এবং চিকিৎসক কখন আসবে জানতে চান। পরে নবজাতকটিকে বারান্দা থেকে উদ্ধারের পর বুঝতে পারি মা পরিচয় দেওয়া ওই নারী তাকে ফেলে পালিয়েছে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন ওই নবজাতককে দত্তক নেওয়ার জন্য হাসপাতালে ভিড় করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অনেক খোঁজাখুঁজি করেও শিশুটির কোনো অভিভাবক পাননি। আনুমানিক তিনদিন বয়সী ওই নবজাতককে রাত ১২টার দিকে উপজেলা ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফেনীর স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সহায়’-এর জিম্মায় ফেনী ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সোনাগাজী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক নুরুল আমিন জানান, নবজাতকটি হাসপাতালে জম্মগ্রহণ করেনি। অন্য কোথাও জম্মের পর তার মা তাকে কৌশলে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন