নীলফামারীতে ভোটের লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন দুই তারকা।

advertisement

নীলফামারীতে এবার ভোটের লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন দুই তারকা। নিজ নিজ স্থান থেকে দুজনেই স্টার। নীলফামারী-২ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন আসাদুজ্জামান নূর ও নীলফামারী-৪ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন।

প্রত্যাশা আর প্রাপ্তিতে আলাদা আলাদা হলেও তারা দুজন রাজনীতিকে এক কাতারে দাঁড় করিয়েছে। যদিও ‘বাকের ভাই’ খ্যাত অভিনেতা আসাদুজ্জামান নূর রাজনীতিতে সফল। সে ক্ষেত্রে ‘ব্ল্যাক ডায়মন্ড’ বেবী নাজনীন রাজনীতিতে সবে মাত্র শুরু। ১৯৯৮ সালে নীলফামারীর রাজনীতিতে যুক্ত হন কলেজজীবনে ছাত্র ইউনিয়নের তুখোড় বক্তা আসাদুজ্জামান নূর। দেশসেরা আবৃত্তিকর ও নাট্যাভিনেতা, মঞ্চ মাতানোর মধ্যদিয়ে তার পথচলা। ২০০১ থেকে টানা নীলফামারী-২ (সদর) আসনের এমপি তিনি। সকলের কাছে সমান জনপ্রিয় ব্যক্তিটি আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক গণ্ডি পেরিয়ে সদালাপী হাসোজ্জ্বল সাদামাঠা ব্যক্তি ইমেজ তাকে পাকাপোক্ত করেছে নীলফামারী জেলার রাজনীতিতে।

এবার নীলফামারী-৪ আসনে মাঠে নেমেছেন দেশের নামকরা সঙ্গীতশিল্পী বেবী নাজনীন। সঙ্গীত জগতে তারও জনপ্রিয়তা কম নয়। সৈয়দপুর ও কিশোরীগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত নীলফামারী-৪ সংসদীয় আসনে ধানের শীষ প্রতীকের হয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রাপ্তির দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে তিনি। তার জনপ্রিয়তাও রয়েছে জন্মভূমি সৈয়দপুরে।

You might also like

advertisement