আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহিদ দিবস উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে বিশ্বের ৪১টি ভাষার গান

advertisement

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহিদ দিবস উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে বিশ্বের ৪১টি ভাষার গান পরিবেশন করা হলো। ‘বাজাও বিশ্ববীণা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন ভাষার গান শ্রোতাদের মুগ্ধ করে।

উদ্বোধনী ভাষণে লিয়াকত আলী লাকী বলেন, বাঙালি জাতির জীবনে ভাষা আন্দোলন বড়ই গৌরবের বিষয়। সমগ্র বিশ্ববাসী মহান একুশের দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করে। বিশ্বের ১৯১টি দেশে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটি বাংলায় গাওয়া হয়। বাংলা ভাষার জন্য এই গৌরব এনে দিয়েছেন মহান একুশের শহিদেরা।

তিনি বলেন, শিল্পকলা একাডেমি একুশের চেতনাকে সমুন্নত রাখার প্রেরণায় প্রতি বছরের মতো এবারও বিশ্বের ৪১টি ভাষার গান পরিবেশনের আয়োজন করে শহীদদের স্মরণ করছে। আমাদের শিল্পীরা যে অন্যান্য ভাষার গান পরিবেশনে কতটা অভিজ্ঞ এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়েই শ্রোতারা উপভোগ করতে পারছেন।

বাজাও বিশ্ববীণা’ অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন ভাষার সঙ্গীত এবং নৃত্যালেখ্য পরিবেশিত হয়। লিয়াকত আলী লাকীর পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানে দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে ‘ঢাকা সংস্কৃতিক দল’ এবং নৃত্য পরিবেশন করে ‘ভঙ্গিমা ডান্স থিয়েটার’। এতে সংগীত পরিচালনায় ছিলেন ইয়াসমিন আলী এবং নৃত্য পরিচালনা করেছেন সৈয়দা সায়লা আহমেদ।

অনুষ্ঠানে মরক্কো, মালয়েশিয়া, শ্রীলংকা, রাশিয়া, নেদারল্যান্ড, নাইজেরিয়া, আফগানিস্তান, কম্বোডিয়া, নেপাল, মেক্সিকো, ইন্ডিয়া, মিয়ানমার, কিউবা, মোজাম্বিক, সিংগাপুর, ইন্দোনেশিয়া, ভানুয়াতু, দক্ষিণ কোরিয়া, মঙ্গোলিয়া, ভুটান, ব্রুনাই, পাকিস্তান, ইউক্রেইন, ইতালি, জাপান, ব্রাজিল, ভিয়েতনাম, পাপুয়া নিউ গিনি, মালদ্বীপ, অস্ট্রেলিয়া, মিশর, ফিলিপাইন, ফ্রান্স, পূর্ব তিমোর, চায়না, সুইজারল্যান্ড, থাইল্যান্ড, ফিজি, জার্মানি, আমেরিকা ও এবং বাংলাদেশের গান পরিবেশিত হয়।

advertisement

You might also like

advertisement