পর্তুগালে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

advertisement

পর্তুগালে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবন পর্তুগালের উদ্যোগে দূতাবাস প্রাঙ্গণে স্থানীয় সময় রবিবার বিকেল সাড়ে ৫ টা থেকে শুরু হওয়া নানা অনুষ্ঠান আয়োজনে বাংলাদেশিরা ছাড়াও স্থানীয় নাগরিকরা অংশ নেন। বিশ্বের বহুবিচিত্র সংস্কৃতির মাঝে বাঙালির সংস্কৃতি তুলে ধরার এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পেরে বিদেশীরাও আনন্দ প্রকাশ করেন।

আমন্ত্রিত দেশি-বিদেশি অতিথিদের কাছে দেশীয় পোশাক, খাবার, সংস্কৃতি ও পহেলা বৈশাখ উদযাপনের ইতিহাস নিয়ে কথা বলেন বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী।

পরে রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী অংশগ্রহণকারী অতিথিদের জন্য আয়োজিত নানা ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে অনুরোধ জানান। ইভেন্টের মধ্যে ছিলো নারীদের বালিশ খেলা। পুরুষ-নারী উভয়ের অংশগ্রহণে হাডিভাঙ্গা খেলা, এছাড়াও অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে আকর্ষণীয় রঙ্গিন বৈশাখী পোশাকের জন্য সেরা তিন দম্পতিকে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

দূতাবাসে প্রবেশের সময় প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীকে একটি করে লাকী কুপন নম্বর দেয়া হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে লটারির মাধ্যমে সাতটি সান্তনা পুরষ্কারসহ মোট দশটি পুরষ্কার প্রদান করা হয়। একই সময় বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহণকারী বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী।

বৈশাখী আয়োজনের শেষে পরিবেশিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পর্তুগাল প্রবাসী শিল্পীদের ব্যান্ড ‘রেয়ার’ এর প্রাণবন্ত পরিবেশনায় অনুষ্ঠানে আনে ভিন্ন মাত্রা। এছাড়াও বাংলাদেশি পোশাকের সাজে বাংলা গানের তালে নৃত্য পরিবেশন করেন ক্ষুদে শিল্পী আহনাফ ও তার দল।

সবশেষে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী অতিথিদের পান্তা ইলিশসহ হরেক রকম ভর্তার আয়োজনে রাতের খাবার পরিবেশন করা হয়। পহেলা বৈশাখ হওয়ায় এতে ঐতিহ্যবাহী সব খাবারের আয়োজন করে দূতাবাস।

পাজামা-পাঞ্জাবী, লাল-সাদা বাসন্তী রঙ্গের শাড়িতে এদিন লিসবনের বাংলাদেশ দূতাবাস প্রাঙ্গনের পরিবেশকে রঙ্গিন করে তুলেছিলো। উৎসবের আমেজে এ যেন আনন্দমূখর এক ক্ষুদে বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি হয়ে উঠেছিলো। দীর্ঘ সময় পর পর্তুগালে বসবাসরত বাংলাদেশিরাও এই দিনটি কাটিয়েছে সম্পূর্ণ দেশীয় আমেজে। তাইতো পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রত্যাশা চিরনতুনের ডাক নিয়ে বারবার ফিরে আসুক এই বৈশাখ।

advertisement

You might also like

advertisement