এনায়েতপুরের যমুনায় ব্যাপক ভাঙ্গন

সুজন সরকার, সিরাজগঞ্জঃ

advertisement

সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে ব্রাক্ষন গ্রাম থেকে পাচিল পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বর্ষা শুরুর আগেই যমুনা নদীতে ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় এই এলাকায় প্রায় অর্ধশতাধিক ঘর-বাড়ী, ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙ্গন রোধে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে যমুনা নদীতে ভাঙ্গন শুরু হয়। দিনে দিনে ভাঙ্গনের তীব্রতা বাড়তে থাকে। বিশেষ করে এনায়েতপুর থানার ব্রক্ষণগ্রাম এলাকায় ভাঙ্গনের তীব্রতা বেড়েছে। মুহুর্তের মধ্যে ঘর-বাড়ী ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে।

গত ২৪ ঘন্টায় অর্ধশতাধিক ঘর-বাড়ী, ফসলি জমি, মসজিদ, কবরস্থান নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে আরো শতাধিক ঘর বাড়ী, ফসলি জমি। অনেকে ঘর ভেঙ্গে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। বর্ষা শুরুর আগেই যমুনা নদীতে তীব্র ভাঙ্গনের কারনে এলাকাবাসীর মধ্যে অতঙ্ক বিরাজ করছে। খুকনী ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বর সোহরাব আলী বলেন, প্রতি বছর নদী ভাঙ্গছে। এবছর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারণ করেছে।

বর্ষ শুরুর আগেই নদীতে ভাঙ্গনের কারনে স্থানীয়দের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। ভাঙ্গন রোধে স্থানীয় সংসদ সদস্য সহ পানি উন্নয়ন বোর্ড আশ্বাস দিলেও তা কাজ হয়নি। ভাঙ্গস রোধে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে এনায়েতপুর কাপড়ের হাটসহ বিভিন্ন স্থাপনা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।

এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান, এনায়েতপুরে ভাঙ্গন রোধে ৬শ কোটি টাকার একটি প্রকল্প তৈরী করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।
প্রকল্পের অর্থ বরাদ্দ পেলেই ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

advertisement

You might also like

advertisement