নির্মলেন্দু গুণের কবিতা উধাও

advertisement

রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভূগর্ভস্থ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর থেকে উধাও হয়ে গিয়েছে জাদুঘরের দেয়ালে লেখা কবি নির্মলেন্দু গুণের কবিতা ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো’। বুধবার (১৫ মে) দুপুরে নিজের ফেসবুক ওয়ালে জাদুঘর থেকে নিজের কবিতা উধাওয়ের কথা জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের বরাবর একটি খোলা চিঠি লেখেন তিনি।

খোলা চিঠির মতো করে লেখা ওই পোস্টে কবি জানান, ‘জনাব, আপনার কাছে আমার আবেদন, আমার কবিতা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভূগর্ভস্থ জাদুঘর থেকে উধাও হলো কীভাবে– তা তদন্ত করে বের করুন। আপনার মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় জাদুঘরে ঘাপটি মেরে বসে থাকা কতিপয় বঙ্গবন্ধু-বিরোধী আমলা মিলে এই অপকর্মটি করেছে বলে আমার ধারণা।’

মন্ত্রীর কাছে এ ঘটনায় দোষীদের খুঁজে বের করে যথাযথ শাস্তির দাবি করে তিনি লেখেন, ‘আপনি এদের খুঁজে বের করে এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিন। অন্যথায় আমি হাই কোর্টে রীট করবো অচিরেই।’

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভূগর্ভস্থ জাদুঘর থেকে নির্মলেন্দু গুণের কবিতা উধাও

বিখ্যাত এই কবির কালজয়ী এই কবিতা উধাওয়ের খবর ফেসবুকে পোস্ট করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমজুড়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়।

উল্লেখ্য, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ ও প্লাজা চত্বরের টেরাকোটা ম্যোরালের নিচেই স্থাপিত হয়েছে এই ভূগর্ভস্থ জাদুঘর। প্লাজা চত্বরে উপর থেকে নিচের দিকে চলে গেছে জাদুঘরের প্রবেশ পথ। প্রবেশের সময় রঙিন কাচের ভেতর থেকে আসা হালকা সবুজ আলো আর প্রথমেই হলঘরে চোখে পড়বে তাতে মিলবে অসংখ্য ছবি। ৬৬’র ছয়দফা আন্দোলন, ৬৯’র গণ-আন্দোলন সকল বিষয়ে সুষ্পষ্ট ধারনা পাওয়া যাবে এ অংশ থেকে। এরপরই পর্যায়ক্রমে যুক্ত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ও নির্মলেন্দু গুনের একটি বিখ্যাত কবিতা ‘স্বাধীনতা এই শব্দটি কিভাবে আমাদের হলো’, যা সেঁটে দেওয়া হয়েছে দেয়ালের এ অংশে। এর পাশেই স্থান পেয়েছে দেশের ঐতিহাসিক দলিলসহ বঙ্গবন্ধুর স্বাক্ষর করা স্বাধীনাতার ঘোষণাপত্র।

You might also like

advertisement