কমলগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ

 ৬ ডিসেম্বর ২০১৭ বুধবার ভিডিওসহ দেখতে ক্লিক করুন    

মৌলভীবাজার থেকে এ.কে.অলকঃ

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (সা:) এর জুলুছে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের কর্মী মোঃ রমজান আলীর উপর সন্ত্রাসী বর্বরচিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (৬ ডিসেম্বর) সকাল ১১ টায় আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার ব্যানারে এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হকের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করা হয়েছে। মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, অাহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি দুরুদ অালী, মাওলানা অাব্দুল মুহিত হাসানী, হাফেজ মোশাইদ অালী, অাব্দৃল মালিক বাবুল, মাওলানা এমরান অালী, রাসেল মোস্তফা, অাব্দুল মুকিদ হাসানী প্রমুখ। উল্লেখ্য, গত শনিবার মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে জশনে জুলুস পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবীর মিছিল চলা কালিন সময়ে মিলাদুন্নবী বিরোধী এক সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালিয়ে ক্ষুর দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে রমজান আলীকে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে পবিত্র জশনে জুলুসে  অংশ গ্রহণকারী কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ছাতক ছড়া গ্রামের মৃত আলি আকবরের পুত্র মোঃ রমজান আলী (২৬) কে একই এলাকায় চিহ্নত সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত মিলাদুন্নবী বিরোধী মোঃ করিম মিয়ার পুত্র আব্দুস সামাদ (২২)  অতর্কিত হামলা চালিয়ে ক্ষুর দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে।মিছিলকারীরা জানিয়ে ছিলেন মিছিলে চলন্ত সিএনজিতে উঠতে না দেওয়ায় রমজানের উপর হামলা চালায় সন্ত্রাসী আব্দুস সামাদ।  হামলায় রমজান আলীর গলায়, বুকের বাম পাশে ধারালো ক্ষুরের আঘাতে মারাত্মক জখম প্রাপ্ত হয়েছিল। মারাত্মক আহত অবস্হায় প্রথমে স্থানীয় কমলগঞ্জ স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে তার অবস্হা আশংকজনক হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজনে মৌলভীবাজার  সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায়  আহতের মামা জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ছিলেন। ঘটনার চার দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও সন্ত্রাসী আব্দুস সামাদকে আটক সম্ভব হয়নি। এব্যপারে কমলগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, আসামী আব্দুস সামাদ কে আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।