বরিশাল শেবামেকের ছাত্রী হোস্টেল মেরামতের নামে অর্থ লোপাট

প্রবাসী বাংলা টিভি ।। ২৮ জানুয়ারি ২০১৬, বৃহস্পতিবার ** ১৫ মাঘ ১৪২২ 

মো:আরিফ হোসেন.বরিশাল ব্যুরো:বরিশাল শেবামেক এখন দুর্নীতির আখড়া হিসেবে পরিণত হয়েছে। ছাত্রী হোস্টেল মেরামতের নামে চলছে অর্থ লোপাট। লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিতে এই মেডিকেল কলেজ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উঠেপড়ে লেগেছে। তাদের এই সব কর্মকান্ড জনমনে প্রশ্ন তুলেছে। সূত্রানুযায়ি, শেবামেকের একটি ছাত্রী হোস্টেল সম্প্রতি বুয়েট ইঞ্জিনিয়ারদল পরিত্যাক্ত ঘোষণা করেন। ফলে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা তড়িঘড়ি করে ছাত্রী হলটি খালি করে। কিন্তু পরে বিষয়টি চাপা পড়লে কর্তৃপক্ষ আবাসন সংকটের নাম করে ওই ঝুঁকিপূর্ণ পরিত্যাক্ত ভবনটিতে আবারো শিক্ষার্থীদের তুলেন। ফলে তারা উপায় না দেখে সেখানেই থাকছে। একদিকে উপরমহলের অনুমতি উপেক্ষা অন্যদিকে ছাত্রীদের নিরাপত্তা ঝুঁকি। সব মিলে যেন একটা হযবরল অবস্থা। এরই মধ্যে পরিত্যাক্ত ভবনটি রং করার নামে নতুন করে বরাদ্দ আসে। আর তাতে স্বাক্ষর করে খোদ কলেজ অধ্যক্ষ ডাঃ ভাস্কর সাহা। আর এই ছাত্রী হোস্টেল ভবনটি রং করার জন্য প্রত্যক্ষ সমর্থন রয়েছে তার। আর এসব করা হচ্ছে খুবই গোপনে। তথ্য আনসতে গেলে প্রশাসনিক কর্মকর্তা বিষয়টি এড়িয়ে যায়। তিনি কোন বরাদ্দ হয়নি বলে জানান। তবে এরকম একটি জড়াজীর্ণ ভবন রং করার প্রসঙ্গে সবাই বিষ্ময় প্রকাশ করে। তারা চান নতুন ঝুঁকিবিহীন ভবন। এমন ত্র“টিপূর্ণ ভবনে রংয়ের
নামে অনিয়ম তারা মানতে নারাজ। ছাত্রীরা দাবী করেন তারা এমন ভাবে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে। কর্তৃপক্ষের এহেন তামাসা তারা মানতে পারছেনা। অধ্যক্ষ ব্যাপারটি স্বীকার করেন। তিনি বলেন, আবাসন সমস্যা থাকায় বিষয়টি মানবিকভাবে নেয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের দাবী এমন ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে বাসকরা অনুচিত। বিষয়টি মানবিকভাবে দেখার কোন সুযোগ নেই। নিরাপত্তা সবার আগে। এদিকে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে বসবাস নিয়ে সাধারণ ছাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। তারা চায় নিরাপত্তাসহকারে স্বাভাবিক ঝুঁকিমুক্ত আবাসন।