নেত্রকোনায় মগড়া তীরের অবৈধ স্থাপনা অপসারন শুরু

 ৩ জুলাই ২০১৮ মঙ্গলবার  ভিডিওসহ দেখতে ক্লিক করুন

নয়ন বর্মন নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ

নেত্রকোনা:জেলা শহরের ভিতর দিয়ে প্রবাহিত মগড়া নদীর তীর ঘেষে নতুন করে গড়ে উঠা দুটি বহুতল ভবনের স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে স্থানীয় প্রশাসন।তাদের দাবি অবৈধ ভাবে সরকারি খাস সম্পত্তিতে স্থাপনাগুলো নির্মাণ করা হচ্ছিল।

মঙ্গলবার(৩জুলাই) পৌর এলাকার নাগড়া এলাকায় সহকারি কমিশনার(ভূমি)বুলবুল আহমদের নেতৃত্বে  পুলিশের সহযোগীতায় অর্ধ শতাধিক শ্রমিক একটানা সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এই উচ্ছেদ অভিযান চালায়। 

উচ্ছেদে ক্ষতিগ্রস্ত শংকর রাজভর জানান,"নিজের সম্পত্তিতে ভবন নির্মাণ করেছি কাগজপত্রও রয়েছে, তবুও উচ্ছেদের শিকার হয়েছি। কোন বিশেষ ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে খুশি করতেই প্রশাসন এই উচ্ছেদ চালিয়েছে"।

আরেকজন ক্ষতিগ্রস্ত ভবন মালিক অশোক বীন
প্রশ্ন রাখেন এখানে আরো অস্যংখ অবৈধ স্থাপনা রয়েছে এগুলো অপসারন করা হচ্ছেনা কেন?

বুলবুল আহমেদ প্রবাসীবাংলাকে বলেন,"অবৈধভাবে সরকারি জমিতে ভবনগুলো নির্মাণ হওয়ায় আমরা তা অপসারন করছি, ইতিমধ্যে ১৫৫টি অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত হয়েছে যা পর্যায় ক্রমে উচ্ছেদ করা হবে"।

এসময় সদর ইউনিয়ন উপসহকারী কর্মকর্তা(ভূমি),এনামূল হক পলাশ,সহ:উপসহকারী কর্মকর্তা(ভূমি)বিনয় সেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য,মগড়া নদীর কিনার ঘেষে সৌন্দর্য্য বর্ধন সহ পায়ে হাঁটা পথ নির্মাণের জন্য দীর্ঘদিনের দাবি রয়েছে শহরবাসীর।কিন্তু নদীর দু পাড়  অবৈধ দখল হয়ে যাওয়ায় প্রকল্প বাস্তবায়ন  করতে পারছেনা স্থানীয় প্রশাসন।সরেজমিনে দেখা যায় শুধুমাত্র পৌর এলাকাতেই কয়েকশো অবৈধ স্থাপনা রয়েছে।যার অধিকাংশ বেআইনিভাবে নদীগর্ভে নির্মাণ করা হয়েছে।ফলে মৃতপ্রায় ও স্থাপনার আড়ালে চলে যাচ্ছে নদী।

সম্প্রতি, নেত্রকোনা পৌরসভা মগড়া নদীর পাড় সংরক্ষণ সৌন্দর্য্যবৃদ্ধি ও পরিবেশ উন্নয়নের জন্য ৩৬ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে।