সংখ্যালঘু নির্যাতন প্রতিরোধে বিশেষ ট্রাইবুনাল গঠন করুন

 ১ নভেম্বর ২০১৬, মঙ্গলবার   সহ দেখতে ক্লিক করুন


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি॥

ব্রাম্মনবাড়িয়ার নাছিরনগরে ও হবিগঞ্জের মাধবপুরে মন্দিরে হামলা ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি ঘর ভাংচুর সহ অগ্নিসংযোগ ঘটনার প্রতিবাদে “বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান আদিবাসী পাটির কক্সবাজার জেলা কমিটির আহবায়ক পরিতোষ বড়–য়া, সদস্য সচিব অজিত কুমার দাশ হিমু, যুগ্ম আহবায়ক ক্যহ্ধসঢ়;লাচিং, সদস্য প্রদীপ দাশ, রিটু বড়–য়া, সুমন দাশ, সমির দাশ, সুশান্ত ডি কস্টা, মাইকেল রোজারিও, অমলেন্দু বড়–য়া, সজল রুদ্র, শুভ দাশ, বিরেরশ্বর দত্ত, সুধীর শর্মা, কাঞ্চন দাশ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে বলেন যে, বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন প্রতিরোধে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠিত হচ্ছে না বিধায়, বার বার নির্যাতনের শিকার হচ্ছে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়। নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ৩০শে অক্টোবর দিন দুপুরে ব্রাম্মনবাড়িয়ার নাছির নগর উপজেলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি বিশেষ ধর্মকে অবমাননা করার ইস্যুকে কেন্দ্র করে উগ্রবাদী ধর্মান্ধ গোষ্ঠি মিছিল সহকারে ব্রাহ্মনবাড়িয়ার নাছির নগরের হিন্দু সম্প্রদায়ের পবিত্র মন্দিরে হামলা, হবিগঞ্জের মাধবপুর সহ কিশোরগঞ্জের মন্দিরে হামলা, বাড়িঘর লুটপাট সহ আগুন দেয়ার মত দুঃসাহসিক ঘটনা ঘটিয়েছে। এটি নতুন কিছু নয়, চুন থেকে পান খসলেই এ ধরনের ঘটনা ঘটানো হয় সংখালঘু সম্প্রদায়ের উপর। প্রশাসন কিছু লোককে গ্রেফতার করে বটে, পরক্ষণে আবার ঘুরে ফিরে সেই একই জায়গায়। প্রশাসনের উদাসীনতাই আমাদের এ করুণ পরিনতির কারণ। আমরা প্রশাসনের এ খাম খেয়ালীপনাকে তীব্র ভাষায় প্রতিবাদ করছি। নেতৃবৃন্দরা আরো বলেন, আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে উপরোক্ত ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত এবং প্রকৃত দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানাচ্ছি ।