ভালুকায় আগাম সবজিতে লাভ বেশী হওয়ায় আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের

 ১২ নভেম্বর ২০১৬, শনিবার   সহ দেখতে ক্লিক করুন


ইতি শিকদার, ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ ময়মনসিহের ভালুকা উপজেলায় উৎপাদিত সবজি দেশ ছেড়ে বিদেশেও সুনাম রয়েছে। এখানকার কৃষকদের মধ্যে রয়েছে বুদ্ধি, কৌশল ও মেধা। তারা বছরের পর বছর সবজি উৎপাদনে অসামান্য অবদান রাখছেন। বর্তমানে তাদের উৎপাদিত শীতকালীন আগাম সবজি হাট বাজরে আসতে শুরু করেছে। আগাম সবজীতে লাভ বেশী থাকায় এখানকার কৃষকরা মৌসুমের আগেই সবজি চাষ শুরু করে। ভালুকা পৌর বাজারে সবজী কিনতে আসা অসীত নন্দী ভানু জানান, ইতিমধ্যেই বাজারে শীতকালীন আগাম সবজি আসতে শরু করেছে। এই সবজির স্বাদ’ই আলাদা। পৌর বাজারে খুচরা সবজি বিক্রেতা আহাম্মদ আলী জানান, আগাম সবজীর দাম বেশী হলেও বাজারে এর চাহিদা রয়েছে। অন্য সময় সবজী চাষ হলেও মৌসুমে সবজী চাষ ও উৎপাদন হয় বেশী। এ সময় চাষীদের উৎপাদিত শাক-সবজী এলাকার চাহিদা মিটিয়ে দেশের অন্যত্র রপ্তানি করা হয়। ভালুকা উপজেলায় উৎপাদিত শীতকালীন সবজির মধ্যে রয়েছে সিম, মুলা, টমেটো, ফুলকপি, বাধাকপি, বেগুন, ঢেরস, করলা, লাউ, চিচিঙ্গা, লাল শাক, পালং শাক, ডাটা শাক, পাট শাক, বরবটি, কাফরুল ইত্যাদি। সরেজমিনে উপজেলার বাটাজোর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকরা পাইকারের কাছ থেকে তাদের উৎপাদিত সবজি ভালো দামে বিক্রি করছে। বাটাজোর বাজারে আসা পাইকার জসিম উদ্দিন জানান, এখানে শীতকালীন আগাম সবজির চাষ করা হয়। তাই তিনিসহ অনেক পাইকার সবজি ক্রয় করতে এখানে ছুটে আসেন। এ অঞ্চলের সবজির স্বাদ’ই আলাদা। তাই ক্রেতাদের কাছে এর আলাদা একটা চাহিদা রয়েছে।