অবশেষে ক্ষমা চাইলেন সানি লিওন

২০১২ সালে প্রাপ্তবয়স্ক ছবির দুনিয়া ছাড়েন সানি লিওন। এরপর জনপ্রিয় ও বিতর্কিত টিভি রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এর মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন তিনি। এরপর দর্শকদের বেশ কিছু সিনেমা উপহার দিয়েছেন সাবেক এই পর্ন তারকা।

সম্প্রতি সানি লিওনের মুক্তি পাওয়া সিনেমা ‘অর্জুন পাটিয়ালা’র একটি দৃশ্যে একজনকে নিজের ফোন নম্বর দিতে দেখা যায় তাকে। কিন্তু সেই ফোন নম্বরটি ছিল ভারতের দিল্লির পুনিত আগারওয়ালের। তাই সিনেমা মুক্তির সঙ্গে সঙ্গেই অনেক ভক্ত সানি লিওনের নম্বর মনে করে ফোন দিতে থাকে পুনিতের মোবাইলে। অবশেষে বিরক্ত হয়ে আদালতে পিটিশন দায়ের করেন পুনিত। এরপরই এই ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন অভিনেত্রী সানি লিওন।

তার জন্য এমনটা হবে ভাবতে পারেননি সানি লিওন নিজেও। সিনেমা করেছেন অনেক। একাধিক ছবিতে আইটেম ডান্স করেছেন তিনি। কিন্তু এভাবে কখনও কারও অস্বস্তির কারণ হয়ে ওঠেননি।

এই প্রসঙ্গে সানিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি ক্ষমা চাইছি। এরকম কিছু হতে পারে আমি ভাবিনি।’

সেইসঙ্গে একটু হেসে সানি বলেন, ‘নিশ্চয় কিছু ইন্টারেসটিং লোকজন ফোন করেছিল।’

গতকাল শুক্রবার গণমাধ্যমের একটি প্রতিবেদনে পুনিতের বিড়ম্বনার কথা উঠে আসে। ভারত তো বটেই, ইতালি, দুবাই, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বহু মানুষ সানি লিওনের নম্বর ভেবে ফোন করতে থাকে পুনিতের মোবাইলে।

ক্ষুদ্ধ পুনিত আগারওয়াল জানান, প্রথম ১০ বার ফোন রিসিভ করেও তিনি বুঝতে পারেননি ঘাপলাটা কোথায়। পরে অবশ্য বিষয়টা তাকে ব্যাখ্যা করে সানি লিওন ভেবে ফোন দেওয়া মানুষরাই। কিন্তু ব্যবসার কাজে ব্যবহার করার কারণে নম্বরটি পরিবর্তনও করতে পারছিলেন না তিনি।

এরপর বাধ্য হয়ে থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন পুনিত আগারওয়াল। কিন্তু তাকে পুলিশ জানায়, এতে তাদের কিছু করার নেই। পরে সিনেমাটি থেকে তার ফোন নম্বর সরিয়ে নিতে আদালতের শরণাপন্ন হয়ে একটি পিটিশন দায়ের করেন সেই তরুণ।

এ বিষয়ে সিনেমাটির পরিচালক রোহিত যাগরাজ কোনো মন্তব্য করতে রাজি না হলেও ক্ষমা চেয়েছেন অভিনেত্রী সানি লিওন।

আরও পড়ুন