ইসলাম-বিদ্বেষের জন্য ক্ষমা চাইলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

যুক্তরাজ্যে আগামী ১২ ডিসেম্বরের সাধারণ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির ভেতরে ইসলাম-বিদ্বেষ থাকার কথা স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সেই সঙ্গে দলের অভ্যন্তরে সব ধরনের বিদ্বেষ নিয়ে স্বাধীন তদন্ত করারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। গতকাল বুধবার কর্নওয়ালে এক নির্বাচনী প্রচারণায় জনসন এ ঘোষণা দেন।

দলের পদ পাওয়ার ক্ষেত্রে ধর্মীয় বৈষম্যের অভিযোগ ওঠায় দলটির সাবেক চেয়ার ব্যারোনেস সায়িদা ওয়ারসি পূর্ণাঙ্গ স্বাধীন তদন্তের দাবি জানান।

এমতাবস্থায় ক্ষমা চাইবেন কিনা, জানতে চাইলে প্রধানমন্ত্রী জনসন বলেন, অবশ্যই, যারা আহত হয়েছেন ও আক্রমণ হয়েছেন তাদের সবার কাছেই আমি ক্ষমা চাই। বিষয়টি অসহনীয় ও অগ্রহণযোগ্য হওয়ায় আমরা তদন্ত করতে যাচ্ছি। ইসলাম-বিদ্বেষ, ইহুদি-বিদ্বেষসহ সব ধরনের বিদ্বেষ ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে ক্রিসমাসের আগেই স্বাধীন তদন্ত শুরু হবে।

এদিকে যুক্তরাজ্যের বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনের বিরুদ্ধে ওঠা ইহুদি বিদ্বেষের জন্য তিনি ক্ষমা চাইবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, তার দলে কোনো ধরনের বিদ্বেষ নেই। আমরা আগামীতে সরকার গঠন করলে নিপীড়নের হাত থেকে সব জনগোষ্ঠীকে রক্ষা করবো।

এর আগে গত মঙ্গলবার দেশটির ইহুদি নেতা এফ্রাহিম মিরভিস দলটির অভ্যন্তরে ইহুদি-বিদ্বেষের অভিযোগ তুলেন।

আরও পড়ুন