উদ্ভাবনী চিন্তা ও পদ্ধতির মাধ্যমে জনসেবা নিশ্চিত করতে হবে

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, জনগণকে কাঙ্খিত সেবা প্রদান করতে নতুন নতুন ধারণা নিয়ে কাজ করতে হবে। উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা ও পদ্ধতির মাধ্যমে জনসেবা নিশ্চিত করতে হবে।

আজ রাজধানীর মতিঝিল সিটি সেন্টারে লোকাল গভার্নেন্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এলজিএসপি-৩) এর কার্যক্রম বাস্তবায়ন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের আয় বাড়াতে হবে। তাহলে তাদের সক্ষমতা বাড়বে। আর ইউনিয়ন পরিষদের সক্ষমতা বাড়লে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে পৌঁছানো সহজ হবে। তবে সকল ক্ষেত্রে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

জনসাধারণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সরকার ইউনিয়ন পরিষদকে শক্তিশালী করার জন্য যে সকল কার্যক্রম গ্রহণ করেছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের বাস্তবায়ন। এ প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় জনগণ সরাসরি অংশগ্রহণের মাধ্যমে তাদের অগ্রাধিকার অনুযায়ী উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্পটির মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৫৩৫ কোটি টাকা যার মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ ৩ হাজার ১৫৩ কোটি টাকা এবং বিশ্বব্যাংকের ঋণ ২৩৮২ কোটি টাকা। জানুয়ারি ২০১৭-তে শুরু হওয়া ৫ বছর মেয়াদি প্রকল্পটি শেষ হবে ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে। প্রকল্প হতে দেশের ৪ হাজার ৫৭১টি ইউনিয়ন পরিষদের ব্যাংক হিসেবে সরাসরি থোক বরাদ্দের অর্থ প্রেরণ করা হয়।

সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, অতিরিক্ত সচিব রোকসানা কাদের, এলজিএসপি-৩ এর প্রকল্প পরিচালক সরদার সরাফত আলী-সহ মন্ত্রণালয় ও প্রকল্পের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে মন্ত্রী ‘আমার ইউপি’নামক একটি মোবাইল অ্যাপের উদ্বোধন করেন। অ্যাপটির মাধ্যমে ইউনিয়ন পর্যায়ে স্কিম বাস্তবায়ন কার্যক্রম মনিটরিং করা সহজ হবে।

নৌপ্রতিমন্ত্রীর সাথে ব্রিটিশ ইাইকমিশনারের সাক্ষাৎ: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরীর সাথে বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট সি ডিকসন (Robert C Diskson) আজ তাঁর সচিবালয়স্থ দফতরে সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে তাঁরা পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। চট্টগ্রাম ও পায়রা বন্দর-সহ নৌখাতের উন্নয়ন এবং ড্রেজিংয়ের ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবদুস সামাদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। প্রতিমন্ত্রী পরে ঢাকা ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গণতন্ত্রী পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহমুদুল হক বাবুকে দেখতে যান। প্রতিমন্ত্রী মাহমুদুল হক বাবুর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন এবং তাঁর দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন।

আরও পড়ুন