এরা মির্জা আব্বাস-খোকার সৃষ্টি

সম্প্রতি র‍্যাবের ক্যাসিনো অভিযানে একে একে উঠে আসছে যুবলীগের বড় বড় সব নেতার নাম। তাদেরই একজন জি কে শামীম। নিজেকে যুবলীগের নেতা পরিচয় দেয়া শামীমকে গত ২০ সেপ্টেম্বর বিকেলে রাজধানীর গুলশানের নিকেতনের অফিসে অভিযান চালিয়ে আটক করে র‍্যাব। পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিলে বেরিয়ে আসে বিস্ফোরক সকল তথ্য।

জি কে শামীম প্রতি মাসে তারেক রহমানকে এক কোটি টাকা দিতেন বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাজশাহী সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম। এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘চলমান অভিযান আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নয়। আওয়ামী লীগ স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন একটি দল। আমরা পরিচ্ছন্ন রাজনীতিতে বিশ্বাস করি।’

তিনি বলেন, ‘চলমান অভিযানে নামকরা যে সাত জনের নাম বেরিয়ে এসেছে তাদের মধ্যে ছয় জনই অনুপ্রবেশকারী। এরা আওয়ামী লীগের নয়। এরা মির্জা আব্বাস-খোকার সৃষ্টি। এই দানবগুলোকে এখন ধরা গেছে। এদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

আরও পড়ুন