করোনায় আক্রান্ত কবরীর ছেলে শাকের চিশতি

কিংবদন্তি চিত্রনায়িকা কবরী করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হয়েছেন গত ১৭ এপ্রিল। তার মৃত্যুর দু’দিন পার না হতেই করোনার লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেন কবরীর ছেলে শাকের চিশতী। গণমাধ্যমকে তিনি জানান, রবিবার রাত থেকেই শরীরে জ্বর। তিনি খাবারের স্বাদ গন্ধ পাচ্ছিলেন না।

এতে কিছুটা ঘাবড়ে যান শাকের। পরে পরিবারের সদস্যদের পরামর্শে করোনা পরীক্ষা করান সরকারি একটি হাসপাতালে। সেখানে ভর্তি হতে না পেরে ভর্তি হয়েছেন বেসরকারি একটি হাসপাতালে। শাকের জানান, তার বুকের সিটিস্ক্যান করা হয়েছে। সিটিস্ক্যানের ফলাফল এখনো হাতে আসেনি।

উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মিষ্টি মেয়ে’ কবরী রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখান থেকে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ৮ এপ্রিল শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১৭ এপ্রিল রাত ১২টা ২০ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মায়ের অসুস্থতার পর থেকে তার চিকিৎসা থেকে শুরু করে দাফন পর্যন্ত সবকিছুতে পাশে ছিলেন শাকের।

 

কবরীর পাঁচ ছেলের মধ্যে বড় তিন ছেলে দেশের বাইরে এবং ছোট ছেলে অটিজমের সমস্যা থাকায় মায়ের যাবতীয় দেখভালের দায়িত্ব পড়ে শাকের চিশতীর ওপর। মাকে নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে দৌড়াদৌড়ি—সবই করতে হয়েছে শাকেরকে। শাকের তার বন্ধু ও কবরীর কাছের কয়েকজনকে নিয়েই মায়ের শেষবিদায়ের কাজটি সম্পন্ন করেন।

আরও পড়ুন