কলেজ শেষে আর বাড়ি ফেরা হলোনা নীলিমার

কলেজ শেষে আর বাড়ি ফেরা হলনা কলেজ ছাত্রী নীলিমার। উপজেলার নতুন কহেলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী নীলিমা খান (১৭) কলেজ শেষে অন্যান্য সহপাঠীদের সাথে নৌকাযোগে নদী পাড় হয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। কিন্তু নৌকায় লোকসংখ্যা ধারন ক্ষমতার চাইতে বেশী হওয়ায় মাঝপথে নৌকা উল্টে যায়। এতে কয়েক শিক্ষার্থীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হলেও নিখোঁজ হয়ে যায় নীলিমা।

ররিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে বংশী নদীতে এই নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে। নিখোঁজ নীলিমা উপজেলার ওয়ার্শী ইউনিয়নের মজদই গ্রামের আলমগীর লস্করের বড় মেয়ে বলে জানা গেছে।

নতুন কহেলা কলেজের অধ্যক্ষ ফারুক হোসেন নিখোঁজ ছাত্রীর ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করে জানান, ইতোপূর্বে বংশী নদীর ওই অংশে বেশ কয়েকবার মাপামাপির কাজ হলেও ব্রীজের কাজ শুরু হয়নি। তার কলেজের প্রায় ৭ শতাধিক শিক্ষার্থী ছাড়াও এলাকাবাসীর জন্য একটি ব্রীজ খুবই প্রয়োজন। যথাযথ কতৃপক্ষের কাছে ওই স্থানে অতিদ্রুত একটি ব্রীজ নির্মাণের দাবি জানান তিনি।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে মির্জাপুর ফায়ার সার্ভিস ও টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে পৌছে নিখোঁজ নীলিমাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। কিন্তু সন্ধ্যায় রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত নীলিমাকে পাওয়া যায়নি।

টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিসের লিডার মো.বিল্লাল হোসেন জানান, ঘটনার সংবাদ পেয়ে খুব দ্রুই তারা উদ্ধার অভিযান শুরু করেছেন। উদ্ধার কাজ অব্যাহত থাকলেও নীলিমাকে আর জীবিত উদ্ধারের সম্ভাবনা নেই বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন