কাশ্মিরে ভারতীয় সেনা-জঙ্গি গোলাগুলিতে নিহত ১

ভারতীয় সেনাবাহিনী ও জঙ্গিদের মধ্যে গোলাগুলিতে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে জম্মু-কাশ্মীরের শোপিয়ান এলাকা।

আজ শুক্রবার (২ আগস্ট) ভোরে জঙ্গিদের উপস্থিতির খবর পেয়ে অভিযান শুরু করে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এতে জঙ্গিরাও পাল্টা গুলি চালায়। এ ঘটনায় মারাত্মকভাবে জখম হয়েছেন ৩ জন ভারতীয় সেনা। যখম হওয়া তিনজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে রাশিয়ান সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক।

তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, এক সেনা নিহত ও একজন আহত হয়েছেন।

জানা যায়, শুক্রবার ভোরে দক্ষিণ সোপিয়ানের ৫৫ নং রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের কনভয় লক্ষ্য করে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিরা। ঘটনায় একটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে সেনাসূত্রে খবর। দু’পক্ষের গুলির লড়াইতে শহিদ হয়েছেন এক সেনা জওয়ান। তবে জঙ্গিদের ঘিরে ফেলে তাদের কাবু করার চেষ্টা করে সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর অনুমান, অন্তত ৩ জঙ্গি আড়াল থেকে তাদের উপর হামলা চালিয়েছে। এখনও চলছে সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াই।

এদিকে, সীমান্ত দিয়ে ভারতে ঢুকে পড়েছে জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি সংগঠনের পাঁচ জঙ্গি! বড়সড় হামলার ছক কষেছে তারা। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, জঙ্গিরা পুলওয়ামার ধাঁচেই ফের নিশানা করেছে ভারতীয় সেনা কনভয়কে। জঙ্গিদের দলে থাকা প্রতিটি জঙ্গি অত্যন্ত প্রশিক্ষিত বলে খবর। পাকিস্তানের মদতপুষ্ট ওই জঙ্গি সংগঠন যে কোনও মুহূর্তে হামলা চালাতে পারে কাশ্মীরের মাটিতে।

ইতিমধ্যেই কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে ভারতীয় সেনা ও বায়ুসেনাকে সবধরণের পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে তৈরি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, উপত্যকায় পাঠানো হচ্ছে আরও ২৫ হাজার সেনা। বৃহস্পতিবার থেকেই কাশ্মীরের আকাশে নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

শহরে ঢোকার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলিতে চলছে নাকা চেকিং। সেই সব পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে সেন্ট্রাল আর্মড প্যারামিলিটারি ফোর্স ও স্থানীয় থানার পুলিশ কর্মীদের। এদিকে ১৫ অগস্ট স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে জম্মু-কাশ্মীরের নিরাপত্তা কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। রয়েছে বায়ুসেনার সি-১৭ বিমানও। যে কোনও ধরণের হামলাকে প্রতিহত করতে সেনাবাহিনী কড়া প্রহরায় মুড়ে ফেলেছে উপত্যকাকে।

প্রসঙ্গত, এই মুহুর্তে কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাদের সাথে একইরকম দায়িত্ব পালন করছেন ভারতীয় সেনাবাহিনী কর্তৃক সম্মানজক লে. কর্নেল উপাধিতে ভূষিত ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায় মাহেন্দ্র সিং ধোনি। গত সপ্তাহ থেকে শুরু করে ১৫ দিন দিন একজন সেনা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন উপত্যকায়।

আরও পড়ুন