কিসে মুক্তি খালেদা জিয়ার, তর্ক-বিতর্কে আইনজীবীরা

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে প্রায় ১৮ মাস ধরে কারাগারে রয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এতদিন তার আইনজীবীরা, আইনি প্রক্রিয়ায় বেগম জিয়াকে মুক্ত করার কথা বললেও এখন বলছেন ভিন্নকথা।

বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা মনে করেন, রাজপথ ছাড়া আইনি পথে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সম্ভাবনা নেই।

বিএনপি নেত্রীর অন্যতম আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, সরকারের হস্তক্ষেপে বেগম জিয়ার মুক্তি হচ্ছে না। রাজপথ ছাড়া আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্তি সম্ভব নয় বলেও জানান তিনি।

আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, সাধারণ আইনি প্রক্রিয়ায় তিনি এ মামলা থেকে মুক্তিও পাবেন না, জামিনও পাবেন না। এবং সেটা এরইমধ্যে প্রমাণও হয়ে গেছে। গত ৫ বছরের মামলা হাইকোর্ট জামিন দেয় না এটার নজির সুপ্রিমকোর্টের নেই।

তবে দুদক আইনজীবীর কথা ভিন্ন। বিএনপি আইনিভাবে না দেখে রাজনীতিকরণ করার কারণে বেগম খালেদা জিয়ার জামিন মিলছে না বলে মন্তব্য করেছেন দুদক আইনজীবী।

রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের আইনজীবী বলছেন, বিচার বিভাগের ওপর সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। আইনি প্রক্রিয়ায় রাজনীতি করণের কারণেই সুফল মিলছে না তাদের।

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, মামলা হেরে গেলেই কি বলবেন সরকারের হস্তক্ষেপ? শত শত মামলায় সরকার হারছে, কই কেউ তো বলছে না সরকারের হস্তক্ষেপ।

বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, বিচার বিভাগের ওপর সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। আইনি পথছাড়া মুক্তির অন্যকোনো পথ খোলা নেই বলেও জানান তিনি।

অ্যার্টনি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, তথ্যের ওপর নির্ভর করেই সাজা দেয়া হয়েছে। তারা যা বলছেন তা নিতান্তই মিথ্যা কথা।

বেগম জিয়াকে মুক্তি পেতে হলে জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় জামিন নিতে হবে। অরফানেজ মামলায় আপিল বিভাগে জামিন আবেদন বিচারাধীন থাকলেও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাষ্ট মামলায় কিছুদিন আগে জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এরপর আর এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেননি তারা।

আরও পড়ুন