খালেদা জিয়াকে এখন আর চেনা যাচ্ছে না

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, ‘দলের চেয়ারপারসনের সঙ্গে সাক্ষাত করেন তার স্বজনরা। তাদের মাধ্যমে জানতে পারি বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা এতটাই খারাপ হয়ে পড়েছে যে, তাকে এখন আর চেনা যাচ্ছে না। তার ওজন অনেক কমে যাওয়ায় শুকিয়ে গেছেন তিনি।’

সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, তিনি হাঁটাহাঁটি করতে পারেন না। বিছানা অথবা চেয়ারে বসে থাকতে হয়। এ কারণে ওষুধ খাওয়ার পরও তার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসছে না। পায়ের ব্যথা কমেনি। কারাগারে গেলেন হেঁটে। অথচ এখন হাঁটতে পারছেন না। হুইলচেয়ারে করে তাকে এদিক-ওদিক নিতে হয়।

তিনি বলেন, ‘তিনি উঠে দাঁড়াতে পারে না, তার সারা শরীরে ব্যথা। এমনকি হাত দিয়ে মুখে তুলে খেতেও পারে না। রাতে ঠিকভাবে ঘুমাতে পারেন না, তাঁর দুই কাঁধ প্রায় ফ্রোজেন, হাতগুলো ফ্রোজেন হয়ে যাচ্ছে। অসুখটা এমন যেটা – ‘ইরিভারসেভেল ডিজিস’ যে ক্ষতিটা হবে তা আর কোনো চিকিৎসাতেই ফিরে আসবে না। তার অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনি দেশনেত্রীর উপর অনেক অত্যাচার করেছেন এবার ক্ষান্ত দিন, মিথ্যা সাজানো প্রতিহিংসার মামলায় অনেক বেশী শাস্তি দেয়া হয়েছে। এবার দ্রুত তাকে মুক্তি দিন।

বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, শত শত বছরের মসজিদের শহর ঢাকা এখন ক্যাসিনোর শহরে উন্নতি লাভ করেছে শেখ হাসিনার উন্নয়নের সরকারের বদৌলতে। চারদিক ডুবে গেছে লুটপাট, খুন, ধর্ষন, মদ, জুয়া, ক্যাসিনো, চাঁদাবাজী, অনাচারে। ক্ষমতাসীন সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজদের হরিলুটে গোটা দেশটা ফাঁপা ফোঁকলা হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ-যুবলীগের দুর্নীতি, লুটপাট, অবৈধ অস্ত্র, সন্ত্রাস, টর্চার সেল, নির্যাতন, দখল, চাঁদাবাজি, ক্যাসিনোসহ গুরুতর সব অপরাধের থলের বিড়াল বেরিয়ে আসার কারণে হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়েছেন ওবায়দুল কাদের, মাহবুবুল আলম হানিফ আর ড. হাছান মাহমুদ সাহেবরা।

তারা বলছেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান নাকি দেশে প্রথম জুয়া চালু করেছেন। আর ঢাকাকে ক্যাসিনোর শহর বানিয়েছে নাকি বিএনপি! তাদের বক্তব্য শুনে একটি প্রবাদের কথা মনে হচ্ছে- ‘দুর্জনের ছলের প্রয়োজন হয়, দুর্বৃত্তের প্রয়োজন হয় মিথ্যার।’

আরও পড়ুন