জাতীয় সংগীত নিয়ে মন্তব্য করে বিপাকে নোবেল

সম্প্রতি শেষ হয়েছে জি বাংলার সংগীতবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা’। এ অয়োজনে ভারতের একজনের সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছেন বাংলাদেশের মাঈনুল আহসান নোবেল। এখানেই শেষ হয়েছে নোবেলের ‘সা রে গা মা পা’র জার্নি।

এ নিয়ে কলকাতা ও বাংলাদেশের নোবেলভক্তদের যখন দুঃখের শেষ নেই, তখনই নতুন এক বিতর্কে জড়ালেন এ শিল্পী। একটি লাইভ সাক্ষাৎকারে জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে মন্তব্য করে নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন নোবেল।

সেই সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেছেন, ‘রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা’ যতটা না দেশকে প্রকাশ করে তার চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি প্রকাশ করেছে প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি।

‘বাংলাদেশ’ গানটি নিয়ে নিজের আবেগের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে গিয়ে নোবেল এইসব বলেন। এই নোবেলের এমন মন্তব্যে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। তাকে এমন মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে বলছেন অনেকেই। অনেকেই দেশের জাতীয় সংগীতকে অপমান করার জন্য তার বিচারও দাবি করেছেন।

ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় চলছে। কোনো গানই জাতীয় সংগীতের সমতুল্য নয় বলে জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

নেটিজেনদের অনেকেই লিখেছেন, এমন বোকামো নোবেল থেকে আশা করা যায় না। জাতীয় সংগীত অতুলনীয়। এটি শুধু সংগীতই নয়; বাংলাদেশের প্রাণ। তার এভাবে তুলনা করাই অনুচিত ছিল। এসব মন্তব্যই শেষ নয়; অনেকে এর জন্য নোবেলকে ক্ষমা চাইতে বলেছেন। বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে তার বিচারও দাবি করেছেন কেউ কেউ।

অবশ্য নোবেলকে নিয়ে সমালোচনা ও বিতর্ক এটিই প্রথম নয়। এর আগেও গান গাওয়ার আগে গীতিকার ও সুরকারের নাম না বলায় বেশ নিন্দিত হয়েছিলেন নোবেল।

এছাড়া এক সাক্ষাৎকারে তারকা ব্যান্ডশিল্পী জেমসের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন নোবেল।

আরও পড়ুন