জাতীয় সংগীত নিয়ে মুখ খুললেন প্রিন্স মাহমুদ

সম্প্রতি শেষ হয়েছে ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেলল জি বাংলার সংগীতবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা’। এই আসরে ভারতের একজনের সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছেন বাংলাদেশের মাঈনুল আহসান নোবেল। এখানেই শেষ হয়েছে নোবেলের ‘সা রে গা মা পা’র জার্নি।

এ নিয়ে কলকাতা ও বাংলাদেশের নোবেল ভক্তদের যখন দুঃখের শেষ নেই, তখনই নতুন এক বিতর্কে জড়ালেন ‘সা রে গা মা পা’র মাধ্যমে আলোচনায় আসা বাংলাদেশি তরুণ শিল্পী মাইনুল আহসান নোবেল। একটি লাইভ সাক্ষাৎকারে জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে মন্তব্য করে নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন নোবেল।

সেই সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা’ যতটা না দেশকে প্রকাশ করে তার চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি প্রকাশ করেছে প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি।

রিয়েলিটি শোটিতে প্রিন্স মাহমুদের করা বেশ ক’টি গান করে প্রশংসা অর্জন করেন নোবেল।

‘বাংলাদেশ’ গানটি নিয়ে নিজের আবেগের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে গিয়ে নোবেল এইসব বলেন। এই নোবেলের এমন মন্তব্যে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। তাকে এমন মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে বলছেন অনেকেই। অনেকেই দেশের জাতীয় সংগীতকে অপমান করার জন্য তার বিচারও দাবি করেছেন।

যদিও এটি ৮ মাস আগের একটি সাক্ষাৎকার। কিন্তু হুট করে দুইয়েকদিন আগে এটি ভাইরাল হয়। সাক্ষাৎকারের এই মন্তব্য নিয়ে দেশে ঝড় ওঠে- এমনকী কলকাতার জনপ্রিয়শিল্পীরাও নোবেলকে ছাড় দিয়ে কথা বলেননি। অন্যদিকে নোবেলের এই বক্তব্যকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা শ্রেণি সমর্থন দিয়ে বসে।

কিন্তু এই গানের স্রষ্টা অর্থাৎ গানের গীতিকার ও সুরকার প্রিন্স মাহমুদ বিষয়টি নিয়ে কী বলছেন তা নিয়েই অনেকেই উৎসুক ছিলেন। তিনিও কি তাই মনে করেন? এমনটা প্রশ্ন ছিল। অবশেষে মুখ খুললেন এই সঙ্গীত স্রষ্টা। তিনিও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা জাতীয় সঙ্গীতের প্রতি পূর্ণ ভালোবাসা। আজ ৪ আগস্ট রবিবার সকালে তিনি ফেসবুক হ্যান্ডেলে লিখলেন, ‘জাতীয় সংগীত আমাদের অস্তিত্বের নাম।

আরও পড়ুন