জয়পুরহাটে লাল-সবুজে সাজানো হল ৩০টি বিদ্যালয়

জয়পুরহাটে লাল-সবুজে সাজানো হল ৩০টি বিদ্যালয়। জেলার কালাই উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো নজর কাড়া রঙ্গে সেজেছে। উপজেলার ৩০ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিটি ভবনই লাল সবুজের পতাকার রং এ রাঙ্গিয়ে জাতীয় পতাকার আদলে ঢাকিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন আর কাউকে বিদ্যালয় খুঁজতে হবে না। লাল-সবুজ পতাকায় মোড়ানো ভবন দেখলেই বুঝবে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

শিল্পীর চিত্রাংকন দিয়ে ভবনগুলো জাতীয় পতাকার সাজে সাজানো স্কুল ভবনগুলো উপহার দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি স্কুলকে দেখলেই মনে হয় যেন একেকটি লাল-সবুজের পতাকা। উপজেলা শিক্ষা কার্যালয়েরসূত্রে জানা গেছে, কালাই উপজেলায় ৪৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৩০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিটি ভবন, দরজা জানালা লাল সবুজের রং দিয়ে সাজিয়ে, জাতীয় পতাকার চিত্রে সাজানো হলো। এমন রূপে সাজানোর ফলে বিদ্যালয়ের শিশু শিক্ষার্থীরা সহজে জাতীয় পতাকার রং জানতে ও বুঝতে পারবে। সেই সঙ্গে লাল-সবুজ রং সম্পর্কে অবগত হয়ে শহীদদের ত্যাগের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে শিশু শিক্ষার্থীরা।

এ ছাড়াশিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা উপকরণ হিসেবে অফিস কক্ষসহ প্রতিটি শ্রেণি কক্ষে মনীষী ব্যক্তিদের ছবি, ফল, ফুল, নদী ও বাঘ ছবি আঁকা রয়েছে। কোন কোন বিদ্যালয়ের ভেতরের দেয়ালগুলোতে একইভাবে মনোরম চিত্রে শোভায়িত করা হয়েছে। আর সেখান মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন চিত্র এঁকে তুলে ধরা হয়েছে। বর্তমান ওইসব বিদ্যালয়গুলো দৃষ্টিনন্দন হওয়ায় শিক্ষার্থীর স্কুলে আসা ও পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে। মাত্রাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিশু শিক্ষার্থী ফজিলাতুননেছা তমা ও রাহাদুর ইসলাম বলেন, আগে আমাদের বিদ্যালয়টি দেখতে তেমন ভালো লাগত না। এখন নতুন ভাবে রং করার পর স্কুলে আসতে অনেক ভালো লাগে। উপজেলার মধুবন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গেলে নাজমুন নাহার নামের এক অভিভাবক বলেন, আমাদের সময়ে এই ধরনের স্কুল ছিলো না।

এমন সুন্দর বিদ্যালয়গুলো পেয়ে আমরা খুবই খুশি হয়েছি। এতে পড়াশুনার মান অনেক বেড়েছে। উপজেলার তেলিহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ ফরিদ উদ্দিন বলেন, আমাদের বিদ্যালয়কে লাল-সবুজ রংঙে সাজানোর জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে মৌখিক নির্দেশনা আছে। সে কারণে সংস্কারের সময় আমরা বিদ্যালয়টি নতুন করে রং করেছি। লাল-সবুজ পতাকায মোড়ানো ভবন মানেই আমাদের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। তাছাড়া শিশু শিক্ষার্থীরা দেশপ্রেমে উদ্ধুদ্ধ হয়ে স্কুলে আসার আগ্রহ জাগবে। কালাই উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোবারক হোসেন জানান, জাতীয় পতাকার রংঙে রাঙ্গানো স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেশপ্রেমের চেতনা বাড়বে বলে আমি আশাবাদি।

একই বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইতিয়ারা পারভীন জানান, এই উপজেলায় ৪৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৩০টি বিদ্যালয়ের প্রতিটি ভবন দরজা জানালা লাল-সবুজের রঙ্গে রাঙ্গীয়ে তোলা হয়েছে। বাকীগুলো অর্থ বরাদ্ধ এলেই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। জাতীয় পতাকা , সঙ্গীত, এবং মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধে শিশু শিক্ষার্থীদের হাতেখড়ি দেওয়ার লক্ষ্যেই আমরা এই ব্যাতিক্রমধর্মী উদ্দ্যেগ গ্রহণ করেছি বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন