জয় শ্রী রাম’‌ না বলায় মুসলিম কিশোরকে পুড়িয়ে হত্যা

জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিতে রাজি না হওয়ায় এক মুসলিম কিশোরের (১৫) শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় ভারতের উগ্রপন্থী হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীরা। হিন্দু চার যুবকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

গত রবিবার রাতে ভারতের উত্তর প্রদেশের বারাণসীর চন্দোলি জেলায় ঘটনাটি ঘটেছে। এতে তার শরীরের প্রায় ৮০ শতাংশই পুড়ে গেছে।

স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে মারা গেছে ১৫ বছর বয়সী দগ্ধ ওই কিশোর।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সে জানিয়েছে, ‘‌দুদহারি সেতুর উপর দিয়ে যাওয়ার সময় চারজন আমাকে অপহরণ করে। এরপর দু’‌জন আমার হাত বেঁধে দেয়। তৃতীয়জন গায়ে কেরোসিন ঢেলে দেয়। এরপর আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় গায়ে। এরপর তারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।’‌

ওই মুসলিম কিশোর বলেছে, ‘‌জয় শ্রী রাম’‌ না বলাতেই গণধোলাইয়ের পর গায়ে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে মারতে চেয়েছিল অপহরণকারীরা।

তবে ধর্মীয় এই স্লোগান দিতে ওই কিশোরকে বাধ্য করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, দগ্ধ ছেলেটি নিজের গায়ে আগুন লাগিয়ে অন্যদের অভিযুক্ত করছে!

এ বিষয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেকে এক পুলিশ কর্তা বলেছেন, ‘‌মুসলিম ছেলেটির শরীরের ৪৫ শতাংশ পুড়েছে। একাধিক লোককে এক এক রকম বিবৃতি সে দিয়েছে। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ দেখা হয়েছে। এ রকম কোনও ঘটনার প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’‌

পুলিশের পক্ষ থেকে ৪৫ শতাংশ পুড়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ছেলেটির শরীরের ৮০ শতাংশই পুড়ে গেছে।

চন্দোলি জেলার পুলিশ সুপার সন্তোষ কুমার সিং বলেন, এটি গুরুতর ঘটনা। তবে ওই কিশোর একেক জনের কাছে একেক ধরনের বক্তব্য দিয়েছে। বিভিন্ন জনের কাছে ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য দেয়ায় আগুনে শরীর ঝলসে যাওয়ার এ ঘটনাকে সন্দেহজনক মনে হচ্ছে। মনে হচ্ছে, এটা তাকে কেউ শিখিয়ে দিয়েছে। এ নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। আসল ঘটনা দ্রুত বিষয়টি প্রকাশ্যে আসবে।

তদন্তের মাঝখানেই মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) ওই কিশোর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সম্প্রতি জোর করে মুসলিমদের জয় শ্রী রাম বলানোর অনেকগুলি ঘটনা মিডিয়ায় এসেছে। এরমধ্যে একাধিকজন ভুক্তভোগীকে হত্যাও করা হয়েছে।

আরও পড়ুন