তামিমের পরিবর্তে সাদমান, সঙ্গী হবেন কে?

তামিম ইকবাল ছুটিতে যাওয়ায় ওপেনিং পজিশন নিয়ে দারুণ সমস্যায় পড়েছে বিসিবির নির্বাচকরা। অভিজ্ঞ তামিমের অনুপস্থিতিতে তরুণ সাদমানই অটোমেটিক চয়েজ, তবে তার সঙ্গি হবেন কে?

বিসিবির নির্বাচকদের কথায় আশার বাণী যতটা আছে তার চেয়ে বেশী দুঃখ আর হতাশাই বেশি। টেস্ট ক্রিকেটে দুই দশকেও দুজন ওপেনারকে নিয়ে থিতু হতে পারেনি এমনকি পর্যাপ্ত ব্যাকআপ প্লেয়ারও তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

তাই তো আফগানদের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে তামিম ইকবাল খান যখন ছুটিতে তখনি নির্বাচকরা পড়েছে বড্ড বিপাকে। তাই তামিম ইকবাল দলে না থাকায় তরুণ ওপেনার সাদমান ইসলাম অটো চয়েজ। সবশেষ নিউজিল্যান্ড সফরে তামিমের সঙ্গে লম্বা ইনিংস খেলতে না পারলেও প্রতিপক্ষকে খুব তাড়াতাড়ি ব্রেক-থ্রু এনে দেননি সাদমান। তাই আফগানদের বিপক্ষে ওপেনিংয়ে বাঁহাতি এই ওপেনার প্রায় নিশ্চিত।

তার সঙ্গী হিসেবে ইনিংস শুরু করতে আছেন আরো চার প্রতিদ্বন্দ্বী। সর্বশেষ তিন টেস্টে কার কেমন অবস্থা। দৌড়ে কে থাকছেন এগিয়ে তাই দেখবো পরিসংখ্যানে।

সৌম্য সরকার: শেষ ৬ ইনিংস বিবেচনায় নিলে যোগ্য দাবিদার সৌম্য। সর্বশেষ সিরিজে ৫০ গড়ে খেলা সৌম্যের আছে ১টি সেঞ্চুরি। তরুণ সাদমানের সঙ্গে সৌম্য সরকারের অভিজ্ঞতাটাও থাকবে নির্বাচকদের বিবেচনায়।

ইমরুল কায়েস: ইমরুল কায়েসের পারফরম্যান্সটা একেবারেই মলিন। শেষ ৬ ইনিংসে হাফ সেঞ্চুরি নেই একটিতেও।

লিটন দাস: টেস্টে লিটন দাসকে খুব একটা ওপেনিংয়ে দেখা যায় না কিন্তু দলের প্রয়োজনে সামনে তাকে আনতে গেলেই বাধা হয়ে যাচ্ছে পরিসংখ্যান। লিটনের শেষ ৬ ইনিংসে হাফ সেঞ্চুরি আছে মাত্র ১টিতে।

সাইফ হাসান: দারুন পারফর্ম করে জাতীয় দলে অভিষেকের জোরালো দাবি রাখছে সাইফ হাসান। ইমাজিং কাপ কিংবা প্রিমিয়ার লিগে খেলা শেষ ৬ ম্যাচে দুইটি সেঞ্চুরি ও দুইটি হাফ সেঞ্চুরি আছে এই ওপেনারের কিন্তু দুই তরুণকে খেলানোর ঝুঁকিটা নিবে কি বিসিবি? সেটা একটা ভাবনা। তাই ওপেনিংয়ে সাদমানে সঙ্গে সৌম্য সরকারই এগিয়ে আছে।

আরও পড়ুন