দক্ষিণ আফ্রিকায় নাইট ক্লাবের ঘটনায় মৃত বেড়ে ২০

দক্ষিণ আফ্রিকার ইস্ট লন্ডন শহরের নাইট ক্লাবের ঘটনায় আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ২০ জন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাতে এ খবর জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

রোববার সকালে ইনিওবেনি টাভেরন নামের একটি নাইট ক্লাব থেকে ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতালে মারা যান আরও  তিনজন। এ ছাড়া অন্তত ২ জনের অবস্থা গুরুতর।

পুলিশ  বলছে, নাইট ক্লাবটির আশপাশের এলাকাটি এখন তদন্তাধীন। এখনই তারা ঘটনার কারণ জানাতে পারবেন না।

 

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ ইস্টার্ন কেপের ইস্ট লন্ডন শহরে ওই নাইট ক্লাবটিতে দেশটির জরুরি সেবা বিভাগের অনেক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। মৃত ব্যক্তিদের স্বজনদের এখনো মরদেহ দেখতে দেওয়া হয়নি। এ ছাড়া স্থানীয় বাসিন্দারা ঘটনাস্থলটি বন্ধ করে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইস্টার্ন কেপের প্রাদেশিক পুলিশ কমিশনার নোমথেলেলি লিলিয়ান বলেন, টাভেরনের (নাইট ক্লাব) ভেতরে পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

পুলিশের মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার টেমবিনিকোসি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নাইট ক্লাবের ভেতরে যাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, তাদের বয়স ১৮ থেকে ২০ বছর।

প্রত্যক্ষদর্শীরা স্থানীয় গণমাধ্যমে বলেছেন, মৃতদেহগুলো তারা এমনভাবে ছড়িয়ে থাকতে দেখেছেন যেন তারা মৃত্যুরকোলে ঢলে পড়েছেন।

মৃত্যুর কারণ জানতে দ্রুত ময়না তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

দেশটির পুলিশ বিষয়ক মন্ত্রী ভেকি সেলে বলেন, এই ঘটনা তার বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে। তরুণরা অসুস্থ ছিল না মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা শীতকালীন অবকাশ উদযাপন করছিল। কিন্তু এভাবে প্রাণ হারাল!

আরও পড়ুন