ধর্ষকের সাথে যৌতুকসহ বিয়ে দেয়ার অভিযোগ এসআই’র বিরুদ্ধে

পাবনার পর এবার লালমনিরহাটে ধর্ষকের সঙ্গে সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে যৌতুকসহ বিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে সদর থানার এসআই মাইনুলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষককে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ওই এলাকার কাজীকে আটক করেছে পুলিশ।

নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, পাশের বাড়ির শাহীন আলমের কাছে প্রাইভেট পড়তো ওই শিক্ষার্থী। সেই সুযোগে তাকে ধর্ষণ করে শাহীন আলম। বিষয়টি জানাজানি হলে লালমনিরহাট সদর থানায় অভিযোগ করতে যায় ওই শিক্ষার্থীর পরিবার। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ের ব্যবস্থা করেন ওই থানার এসআই মাইনুল। শুধু তাই নয়, ধর্ষককে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকও দিতে বাধ্য করেন মেয়ের পরিবারকে।

ওই শিক্ষার্থীর মা বলেন, ‘আমার মেয়ের সঙ্গে যা হয়েছে তা যেন আর কারো সঙ্গে না হয় সরকারের কাছে আমি সেই দাবি করছি।’

ভুক্তভোগী কিশোরী জানায়, তার মা-বাবা কেউ বিয়েতে রাজি ছিলেন না। পরে ছেলেকে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দিয়ে বিয়ে দেয়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জানান, মেয়েটি অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় থানায় অভিযোগ করার পরামর্শ দেন তিনি।

অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় মৌখিকভাবে বিয়ে দেয়া হয় মেয়েটিকে। সেই সুযোগে ছেলের পরিবার বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করছে। উল্টো মেয়ের পরিবারকে গ্রাম ছেড়ে চলে যাওয়ারও হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ নির্যাতিতার পরিবারের।

আরও পড়ুন