নিরহ মানুষকে আসামী করাই এলাকাবাসির মানববন্ধন

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি:

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে আদিবাসি সাঁওতাল পল্লিতে অগ্নিসংযোগ, লূটতরাজ, ভাংচুর ও পুলিশের গুলিতে ৩ (তিন) সাঁওতাল নিহত হওয়ার ঘটনায় এলাকার নিরহ মানুষকে অভিযুক্ত করে বিজ্ঞ আদালতে চার্জসীট দেওয়ার প্রতিবাদে স্থানীয় এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে।

গত শুক্রবার ২ আগষ্ঠ বিকেলে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটামোড়ে সাপমারা ইউনিয়নবাসির আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সাপমারা ইউনিয়ন পরিষদের ইউ’পি সদস্য যথাক্রমে আইয়ুব আলী, রফিকুল ইসলাম, আক্কাস আলী, স্থানীয় এলাকাবাসির পক্ষে মানিক মিয়া, মোজাম্মেল হক, আব্দুস সামাদ, জাফুরুল ইসলাম, সাদ্দাম হোসেন ও বাদশা মিয়া।

এ সময় তারা বলেন, দীর্ঘদিন যাবত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল হাই সরকার, আদিবাসি সাঁওতাল পল্লির ঘটনার মামলা তদন্ত করে প্রকৃত আসামীদের বাদ দিয়ে এলাকার নিরহ মানুষকে এ মামলায় অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে। এলাকাবাসি মিথ্যা চার্জশীট প্রত্যাহার করে ঘটনার সাথে সংপৃক্ত প্রকৃত আসামীদের চিহিৃত করে বিজ্ঞ আদালতে চার্জশীট দাখিল করার জন্য প্রধানমন্ত্রী সহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ঠ উর্দ্বর্ত্বণ কৃর্তপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

উল্লেখ্য: ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বরে রংপুর সুগারমিলের সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্মের জমি থেকে আদিবাসি সাঁওতালদের উপজেলা প্রশাসন উচ্ছেদ করতে যেয়ে পুলিশের গুলিতে ৩ (তিন) সাঁওতাল নিহত, অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লূটতরাজ করা হয়। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল হাই সরকার এ মামলায় ৯০ জনকে অভিযুক্ত করে গত ২৮ জুলাই গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র ( চৌকি) ম্যাজিষ্ট্রেট পার্থভদ্র এর বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেছেন।

আরও পড়ুন