নিষিদ্ধ মেসি

সদ্য সমাপ্ত কোপা আমেরিকার এবারের আসর বসেছিল ব্রাজিলে। কোপার এই আসর জুড়ে ব্যাপক আলোচিত ও সমালোচিত ছিল আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি। ব্রাজিলের কোছে সেমিফাইনালে হেরে কোপা আমেরিকার কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করে বসেন মেসি। তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচ শেষেও একই কাজ করেন তিনি। এ কারণে শাস্তিটা অনুমিত ছিল মেসির।

অবশেষে জানা গেল লিওনেল মেসির শাস্তির পরিমাণ। আন্তর্জাতিক ফুটবলে ৩ মাসের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে। একইসঙ্গে আর্থিক জরিমানাও করা হয়েছে তাকে।

সম্প্রতি ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকায় চিলির বিপক্ষে তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে লাল কার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়া হওয়ার সময় মেজাজ হারিয়েছিলেন বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম তারকা খেলোয়াড় মেসি।

মেসি বলেছিলেন, প্রতিযোগিতাটিতে স্বাগতিক ব্রাজিলকে চ্যাম্পিয়ন করার জন্য সবকিছু আগে থেকে ঠিক করে রাখা হয়েছে। প্রতিযোগিতার আয়োজক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এ রকম করা ভাষায় সমালোচনা করেছিলেন মেসি।

দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রণ সংস্থা কনমেবল মেসির এমন আচরণ মোটেও ভালোভাবে নেয়নি। অখেলোয়াড় সূলভ আচরণের জন্য পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলারকে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ৩ মাসের নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পাশাপাশি ৫০ হাজার ডলার জরিমানাও করেছে তারা।

অবশ্য এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করার জন্য সাত দিনের সময় দেওয়া হয়েছে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে।

এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকলে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে চিলি, মেক্সিকো ও জার্মানির বিপক্ষে আর্জেন্টিনার প্রীতি ম্যাচগুলোতে খেলতে পারবেন না লিওনেল মেসি।

তবে ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপের শুরু থেকেই খেলতে পারবেন ৩২ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়। বাছাই পর্বে আর্জেন্টিনার মিশন শুরু হবে ২০২০ সালের মার্চে।

আরও পড়ুন