পরকিয়া ঠেকাতে স্ত্রীর প্রেমিককে অপহরণ

পরকিয়া ঠেকাতে দিনে দুপুরে স্ত্রীর প্রেমিককে অপহরনের সময় এলাকাবাসীর বাধার মুখে পিস্তল ফেলে পালিয়েছে অপহরনকারীরা।

রবিবার (১সেপ্টেম্বর)বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের খালেক মেম্বারের মোড় নামক স্থানে।

জানা গেছে, দেবীগঞ্জ পৌরসভার কলেজপাড়ামমিনুর রহমানের স্ত্রী রুমি আক্তারের সাথে একই উপজেলার কালীগঞ্জ কলেজপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে ও ভিআইপি বিজনেজ সেন্টার দেবিগঞ্জ এর সেলসম্যান শাহ মোহাম্মদ রুহানীর দীর্ঘদিন যাবত পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিলো। রুমি রোববার রুহানীকে তার খালার বাড়ী ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের খাটুরিয়া গ্রামে দেখা করতে বলে। এ ঘটনা রুমির স্বামী জানতে পেরে তার এক সহযোগীকে নিয়ে ওৎ পেতে বসে থাকে। রুহানী মটর সাইকেল যোগে দেবীগঞ্জ থেকে খাটুরিয়া আসার পথে আমতলী নামক স্থানে মমিনুর রহমান ও তার এক সহযোগীসহ রুহানীর পথরোধ করে অস্ত্র ঠেকিয়ে মটর সাইকেল নিজের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে রুহানীকে তার মটর সাইকেলে মাঝখানে বসিয়ে অপহরণ করে যাওয়ার সময় খালেক মেম্বারের মোড় এলাকায় রুহানী চিৎকার করলে অপহরণকারীরা শুটারগানের পিছনদিয়ে মাথায় আঘাত করে সেই সময় নিজেকে আত্মরক্ষায় চালককে ঘুষি মারলে ঘটনাস্থলে তিনজনেই পরে যায়। আশেপাশের লোকজন ছুটে আসলে অপহরণকারীরা অবস্থা বেগতিক দেখে অস্ত্র ফেলে অপহৃতের মটর সাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় তৈরী ওয়ান শুটারগান পিস্তল ও অপহৃতকে উদ্ধার করে।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ডোমার সার্কেল) জয়ব্রত পাল জানান, অপহরণের খবর পেয়ে ডোমার থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অপহৃত শাহাদাত মোহাম্মদ রুহানী নামে এক যুবক ও একটি দেশীয় তৈরী ওয়ান শুটারগান পিস্তল উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ডোমার থানায় অস্ত্র আইনে এবং অপহরণ বিষয়ে পৃথক দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন