পালানোর পর প্রথম প্রকাশ্যে এলেন দুবাইয়ের শাসকের স্ত্রী

দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের ষষ্ঠ স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিনতে আল হুসেইন রাজপ্রাসাদ থেকে পালানোর পর প্রথমবার প্রকাশ্যে এলেন। মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) তিনি লন্ডনের রয়েল কোর্ট অব জাস্টিসে হাজিরা দিলেন। সেখানে আদালতকে জানালেন, তিনি নিজের জীবন নিয়ে শঙ্কায়। একই সঙ্গে তার সন্তানদের যেন পারিবারিক বিয়ের অধীনে গণ্য করে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ফেরত পাঠানো না হয়।

এ নিয়ে তোলপাড় হয় তামাম দুনিয়া। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।

বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের অন্যতম প্রিন্সেস হায়া’র স্বামী শেখ মোহাম্মদ বৃটেনের কাছে দাবি করেছেন, তার সন্তানদের ফেরত দেয়ার জন্য। প্রিন্সেস হায়া দুবাই থেকে পালানোর পর মঙ্গলবার প্রথম প্রকাশ্যে আদালতে হাজির হন। এ সময় তিনি ছিলেন সাদা পোশাকে, ডায়মন্ড বসানো কানের গহনা, ডিজাইনারদের তৈরি হ্যান্ডব্যাগ ছিল তার সঙ্গে।

 

সঙ্গে ছিলেন বিচ্ছেদ বিষয়ক আইনজীবী, যিনি ‘স্ট্রিল ম্যাগনোলিয়া’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন, সেই ব্যারোনেস শ্যাকলেটন। শ্যাকলেটন বৃটিনের প্রিন্স চার্লস ও প্রিন্সেস ডায়ানার বিচ্ছেদের বিষয়টি হাতে নিয়েছিলেন। হাতে নিয়েছিলেন পল ম্যাককার্টনি ও হিদার মিলসের বিচ্ছেদের মামলা।

এর আগে তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই থেকে পালিয়ে শেষ পর্যন্ত আশ্রয় নেন লন্ডনে। সঙ্গে নিয়ে গিয়েছেন দুই সন্তানকে। তাদের নিয়ে তিনি আত্মগোপন করেন। স্বামী শেখ মোহাম্মদ আল মাকতুমের সঙ্গে বিচ্ছেদের আবেদন করেন।

আরও পড়ুন