প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ছাত্রলীগে শুদ্ধি অভিযান

শুরু হচ্ছে ছাত্রলীগের শুদ্ধি অভিযান। সারাদেশে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে আওয়ামী লীগের একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি কাজ শুরু করেছে। ছাত্রলীগে কারা অনুপ্রবেশকারী, কারা অন্যদল থেকে ছাত্রলীগে এসেছে, কারা ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম করছে এবং কারা বিভিন্ন দুর্নীতি এবং ঘুষের মাধ্যমে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদ পদবি দখল করেছে সে ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে।

আওয়ামী লীগের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ব্যক্তিগত উদ্যোগে ছাত্রলীগ তদারকি করছে এবং এখনি কমিটি বাতিল না করে ছাত্রলীগে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করার নীতি গ্রহণ করেছেন বলে তার ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। শুদ্ধি অভিযানে যে বিষয়গুলো দেখা হবে তা হলো:
১. ছাত্রলীগে নতুন কমিটি গঠিত হওয়ার পর এই কমিটির সদস্যরা নৈতিক স্খলনজনিত অর্থনৈতিক, আদর্শিক কি কি অনিয়ম বা অন্যায় করেছে তা তদন্ত করা এবং খুঁজে বের করা।

২. ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে যে সমস্ত অভিযোগ উঠেছে তা কতটুকু সত্য বা কতটুকু তাদেরকে ঘায়েল করার কৌশল সে ব্যাপারে সুষ্ঠু তদন্ত করা।
৩. এই কমিটিতে যারা অন্তর্ভূক্ত হয়েছে এবং যাদের অন্তর্ভূক্তি নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে তাদের সম্বন্ধে গোয়েন্দা সংস্থা এবং আওয়ামী লীগের উদ্যোগে তদন্ত করা।

৪. ২০০৯ সাল থেকে যারা ছাত্রলীগে যোগদান করেছে তাদের প্রত্যেকের ব্যাপারে স্থানীয়ভাবে এবং গোয়ন্দা সংস্থার মাধ্যমে ত’দন্ত করা হবে। যারা বিএনপি এবং জামাত থেকে ছাত্রলীগে এসেছে তাদের তালিকা তৈরী করা হবে। তাদেরকে ছাত্রলীগে রাখা না রাখার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ২০০৯ সাল থেকে বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগে যাদের বিরুদ্ধে চাদাবাজিসহ বিভিন্ন অ’ভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগগুলো তদন্ত হবে।
৫. ছাত্রলীগের মেধাবি শিক্ষার্থীদের একটি তালিকা তৈরী করা হবে। মেধাবি শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগের কমিটিতে আসতে পেরেছে কিনা সে ব্যাপারেও যাচাই বাছাই করা হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের কার্যক্রম বা ছাত্রলীগের নেতৃত্ব পরিবর্তন করার চেয়ে সংগঠনটিতে যেসমস্ত ক্ষতগুলো আছে তা দূর করার নীতি গ্রহণ করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি আওয়ামী লীগের মধ্য থেকে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করবেন বলে জানা গেছে। যে কমিটিতে দুজন যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এবং দুজন সাংগঠনিক সম্পাদক থাকতে পারেন। এই ব্যাপারে খুব শিঘ্রই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হতে পারে বলে আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে।

আরও পড়ুন