প্রিয়জনের কাছে ভুলেও বলবেন না যে ৭ গোপন কথা

যেকোনো সম্পর্ক গড়তে যে সময়টা লাগে ভাঙতে তার চারভাগের একভাগও লাগে না। প্রেমের সর্ম্পক তো আরো জটিল। ভালোবাসার সর্ম্পকগুলোতে সময়ের সাথে সাথে বাড়তে থাকে নান রকম বিপত্তি, ঝামেলা, অভিযোগ-অনুযোগ ও রাগ-অনুরাগ। সম্পর্ককে সুন্দর, সাবলীল ও টিকিয়ে রাখতে কিছু কৌশল তো জানতেই হবে। চলুন জেনে নওেয়া যাক সেগুলো কী কী-

বাড়াবাড়িতে হতে পারে ছাড়াছাড়ি

মিনিটে মিনিটে প্রেমিক বা প্রেমিকাকে জিজ্ঞেস করবেন না, সে খেয়েছে কিনা। কখনোই জানতে চাইবেন না সারাদিন সে কী কী কাজ করেছে। তারপর কোথায় যাচ্ছে, কার সঙ্গে কথা বলছে, এসব বিষয় না জানতে চাওয়াই ভালো। কারণ, প্রেমে প্রথম প্রথম এসব আহলাদ ভালো লাগলেও, পরে কিন্তু এ ধরনের কথোপকথন একেবারেই বিরক্তির বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

প্রাক্তন নিয়ে কথা নয়

পুরনো প্রেম অনেকেই ভুলতে পারেন না। বারবার সেই প্রেমিক বা প্রেমিকার কথা মনে পড়ে যায়। এ বিষয়টা কিন্তু নতুন সম্পর্ককে দুর্বল করে দিতে পারে। পুরনোকে ভুলে নতুনের হাতে হাত রেখে আগামী দিনগুলো রঙিন করার নামই জীবন। বর্তমান প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে মোটেও পুরনো প্রেম নিয়ে আলোচনা করবেন না। পুরনো প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে কোন কিছুতে তুলনাও করবেন না। এতে সম্পর্কে সমস্যা বাড়তেই থাকবে।

মা-বাবাকে সম্মান করুন

প্রেমিক বা প্রেমিকার মা-বাবাকে অবশ্যই সম্মান করবেন। যদি তাদের প্রতি কোনো কারণে রাগ বা অভিমান হয়, তাহলে কখনোই প্রিয়মানুষটির কাছে প্রকাশ করবেন না। এতে শুধু ভুল বোঝাবুঝিই নয়, নতুন করে অশান্তিও সৃষ্টি হতে পারে।

অন্যের বেশি বেশি প্রসংশা নয়

পরিচিতজনদের মাঝে কারো কারো ব্যক্তিত্ব, সৃজনশীলতায় বেশি মুগ্ধ হলে সেটা প্রেমিক বা প্রেমিকার কাছে প্রকাশ করবেন না। এই ভালো লাগাটা কিন্তু অন্যায় কিছু নয়। হতে পারে সে ভালো গান গায় বা ভালো রান্না করে, তারপরেও ভুল করে নিজের প্রেমিক বা প্রেমিকার কাছে বলতে যাবেন না। অমুক এটা করেছে, তমুক ওটা করেছে- এসব তো বলবেনই না। ভালোলাগাটুকু নিজের মধ্যেই রেখে দিন। শান্তিতে থাকবেন।

সম্পর্ক নিয়ে দুশ্চিন্তা নয়

সম্পর্কের ভবিষ্যত নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তা করেন। মানে সম্পর্কটা শেষ অবধি টিকবে কিনা, সেই চিন্তাই সব সময় মাথায় ঘুরেফিরে। ভুলেও এসব নিয়ে প্রিয়মানুষের সঙ্গে আলোচনায় যাবেন না। এতে সম্পর্ক শুধু দুর্বলই হবে। এসব নিয়ে না ভেবে বরং প্রিয়মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করুন।

অযথা কৌতূহল নয়

সর্ম্পক তখনই টিকে থাকবে যখন দুজন দুজনকে স্পেশ দেবেন। একদম ব্যক্তিগত বিষয়গুলোতে নাক না গলানোই ভালো। থাকুক না অজানা কিছু ব্যক্তিগত বিষয়। অযথা প্রিয় মানুষের ফোন ঘাঁটবেন না। এবং প্রেমিক-প্রেমিকার বন্ধুদের নিয়ে সন্দেহ বা বেশি কথা জিজ্ঞাসা করবেন না।

মিস করলেই বাড়বে প্রেম

মাঝে মধ্যে সম্পর্ককে ছেড়ে দিন, মানে সম্পর্কের বাঁধনকে মুক্ত করে দিন। প্রয়োজনে দেখা করা, কথা বলা কমিয়ে দিন বা বিরতি দিতে পারেন কয়েক দিনের জন্য ৷ দেখবেন একে অন্যের অভাব বোধ করছেন। আর মিস করলেই প্রেম বাড়বে হু হু করে।

 

আরও পড়ুন