‘ফিরোজায়’ সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে খালেদা জিয়া : ডা. জাহিদ

‘গুলশানের বাসা ‘ফিরোজায়’ চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। করোনা ভাইরাসসহ সব ধরনের ইনফেকশন থেকে রক্ষা এবং মানসিক কনফিডেন্ট বাড়ানোর জন্যই মূলত তাকে হাসপাতাল থেকে বাসায় নেওয়া হয়েছে। অন্যথায় হাসপাতালেই সার্বক্ষণিক সুপারভিশনে রাখা যেতো। তারপরও যথাসম্ভব সতর্ক অবস্থা অবলম্বন করছেন চিকিৎসকরা। কোনো রকমের সমস্যা দেখা মাত্রই আবারও তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হতে পারে।’

বেগম খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপির ভাইসচেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন আজ বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে সার্বক্ষণিক মনিটর করছেন চিকিৎসক ও নার্সরা। এছাড়াও প্রতিদিন দুইবেলা করে মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা তার শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করছেন। একই সঙ্গে তার পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান নিজেও সার্বক্ষণিক লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যোগাযোগ রাখছেন।

 

তিনি আরও বলেন, হাসপাতাল থেকে বাসায় যাবার পর এখনো পর্যন্ত নতুন করে কোনো সমস্যা বা উপসর্গ তার শরীরে দেখা যায়নি। তবে সম্পূর্ণ সুস্থ হতে হলে বিদেশের কোনো ‘উন্নত হেলথ সেন্টারে’ তাকে নিতেই হবে।

ডা. এজেডএম জাহিদ জানান, সুদূর যুক্তরাজ্য থেকে ‘ম্যাডামের’ (খালেদা জিয়ার) দুই নাতনী এসেছেন ঢাকায়। তার ছোটো ছেলে মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর দুই কন্যা জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমান আজ দুপুরে ঢাকায় পৌঁছার পর দু’জনকেই কোভিড টেস্ট শেষে দাদির (খালেদা জিয়ার) সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন