ফের জোকোভিচের ভিসা বাতিল করলো অস্ট্রেলিয়া সরকার

আবারও টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচের ভিসা বাতিল করলো অস্ট্রেলিয়া সরকার। আগামী সোমবার থেকে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শুরু হওয়ার কথা।

শুক্রবার দেশের অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হকে জানিয়েছেন, টিকা না নেয়ার জন্যই দ্বিতীয়বার এই সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে। টিকা না নিলে তার জন্য চিকিৎসা সংক্রান্ত নথিপত্র জমা দিতে হতো জোকোভিচকে। সেটাও তিনি দেখাতে পারেননি। এবার টেনিস তারকাকে ডিপোর্ট করার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এরপরেও আদালতের দ্বারস্থ হতে পারবেন জোকোভিচ। অভিবাসন দপ্তরের নতুন নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারবেন। কিন্তু শেষপর্যন্ত কোর্টে নামতে পারবেন কি না, তা নিশ্চিত নয়।

 

এর আগে গত ৬ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়া ওপেনে যোগ দেওয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছান নোভাক জোকোভিচ। বিমানবন্দরেই তাকে অভিবাসন দপ্তরের অফিসররা আটকে দেন। অভিযোগ, টেনিস তারকার কোভিড টিকা নেয়া নেই। কোভিড টিকা না নেওয়ার জন্য যে চিকিৎসা সংক্রান্ত নথি দেখাতে হয়, জোকোভিচের কাছে তা-ও নেই বলে জানান তারা। দীর্ঘক্ষণ জোকোভিচকে বিমানবন্দরেই বসিয়ে রাখা হয়। এরপর তাকে অভিবাসন দপ্তরের ঠিক করে দেওয়া হোটেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। কার্যত বন্দি থাকতে হয় তাকে সেখানে। গোটা প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন জোকোভিচ।

আদালত জানায়, যে প্রক্রিয়ায় জোকোভিচকে আটকানো হয়েছে, তা ঠিক নয়। আদালত এই রায় দিলেও অভিবাসন দপ্তর জোকোভিচকে ছাড়তে রাজি হয়নি।

অস্ট্রেলিয়ার আইন অনুযায়ী, আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়েও অভিবাসন দপ্তর কোনো ব্যক্তিকে ডিপোর্ট করতে পারে। সেই ক্ষমতা ব্যবহার করেই শুক্রবার দ্বিতীয়বারের জন্য জোকোভিচের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে অভিবাসন মন্ত্রী। তবে এর বিরুদ্ধেও মামলা করার সুযোগ আছে টেনিস তারকার।

অভিবাসন মন্ত্রীর অভিযোগ, জোকোভিচ নথিতেও ভুল তথ্য দিয়েছেন। প্রশ্ন ছিল, অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ার আগে ১৪ দিন তিনি কোথাও গিয়েছিলেন কি না! জোকোভিচ লিখেছিলেন, তিনি কোথাও যাননি। কিন্তু তিনি স্পেনে গিয়েছিলেন। জোকোভিচ এর উত্তর বলেছেন, মানুষের ভুল হতেই পারে। তিনি নন, তার এজেন্ট এই ভুল করেছিলেন। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার সরকার ওই নথিটিকেও গুরুত্বপূর্ণ কাগজ হিসেবে ব্যবহার করেছে মামলায়। এটিও তার ভিসা বাতিল করার অন্যতম কারণ বলে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

কোভিড-কালে অত্যন্ত কড়া লকডাউন দীর্ঘদিন ধরে জারি রেখেছিল অস্ট্রেলিয়া। এখনো কড়া কোভিডবিধি পালন করতে হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে টিকা না নেওয়া জোকোভিচকে তারা দেশে ঢুকতে দিতে চাইছে না।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

 

আরও পড়ুন